হরফে আঁকা জীবন: আত্মজৈবনিক গল্পভাষ্যে শুদ্ধতার পাঠ

প্রকাশিত: ৭:২৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০

ওমর শাহ

মুহাম্মদ যাইনুল আবিদীন। জনপ্রিয় এ গদ্যশিল্পী গভীর পাণ্ডিত্য, স্নিগ্ধ আচরণ, অনুপম ভদ্রতা, ঋজু ব্যক্তিত্ব, নিরবচ্ছিন্ন সাধনা আর জীবন জয়ের পাহাড়-প্রতিজ্ঞায় দীপ্ত উজ্জ্বল এক মোহন পুরুষ— যাঁর পাশে সহজে আনন্দে বসে থাকা যায়; যাঁর মুখটেপা হাসি, হৃদয়ে ছড়িয়ে দেয় শান্ত—স্নিগ্ধতা। তাঁর ক্লাসের লেকচার, সেমিনারের বক্তৃতা আর ঘরোয়া মজলিসের একান্ত আলাপ শ্রোতাদের হৃদয় গহনে জাগিয়ে তোলে ভালোবাসা আর সমর্পণ।

মাওলানা আবিদীনের বিশেষ বৈশিষ্ট্য— তিনি চিন্তায় গভীর, সূক্ষ, নিবিষ্ট এবং ধারাবাহিক; নিরপেক্ষ এবং মৌলিক। তিনি শুধু নিজেই অনুপম ভালো নন, এই সুন্দর ও শুভ্রতাকে চারপাশে ছড়িয়ে দেওয়ার নিপুণ কারিগরও। তিনি যে জীবনকে যাপন করেন, যে বিশ্বাসকে লালন করেন এবং যে প্রেমকে ধারণ করেন, তারই সারবত্তা আমাদের সামনে শব্দের মোড়কে তুলে ধরছেন দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে। জীবনজাগানিয়া মৃদু-নিবিড় নিমগ্ন সুরে, গবেষণা গম্ভীর গভীর কথামালায়, কখনো উচ্চকণ্ঠী প্রতিবাদী বাক্যবাণে।

তার গদ্য ঝরঝরে, সুখদ, বিশ্বাসী এবং সাহিত্য-সুবাসিত; তার অনুবাদ বাঙলা সাহিত্যে আপন মহিমায় উজ্জ্বল এক স্মরণীয় সংযোজন। তবে কীভাব তিনি হয়ে উঠলেন সাধারণদের মাঝেও অসাধারণ এক লেখক? কোন শক্তি ও যাদুর ছোঁয়ায় তিনি পাঠককে মন্ত্রমুদ্ধের মতো টেনে নিয়ে যান? কী আছে তাঁর কলমের কালিতে? কাদের দেখে কাদের পড়ে অনন্য হয়ে উঠলেন মুহাম্মদ যাইনুল আবিদীন। তাঁর বেড়ে উঠা, শৈশব-কৈশোর, পড়াশোনা, বাংলা চর্চা, কর্মজীবন, লেখালেখি, রাজনৈতিক ভাবনা, পরিবার ও আগামীর স্বপ্ন নির্মাণের গল্প নিয়ে গদ্যশিল্পী ও সাংবাদিক আমিন ইকবালের হাতে রচিত হয়েছে মুহাম্মদ যাইনুল আবিদীনের আত্মজৈবনিক সাক্ষাৎকার ‘হরকে আঁকা জীবন’।

সময়ের এ অনুকরণীয় লেখকের জীবন বৈচিত্রের নানা দিক ও চিন্তার রাজ্যগুলো সুনিপুন ভাষায় ও কৌতূহলী প্রশ্নে একের পর এক এঁকে গিয়েছেন আমিন ইকবাল। গল্পের ছলে ছলে সুখপাঠ্য গদ্যে মুহাম্মদ যাইনুল আবিদীনকে তিনি নতুন করে আবিস্কার করেছেন। সেইসঙ্গে তাঁকে তরুণদের চোখে হরফের কালিতে তুলে ধরে মুনশিয়ানা সাংবাদিকতারও পরিচয় দিয়েছেন।

গ্রন্থটির উপস্থাপনা, বিষয় ও লেখকের সৃষ্টিকর্ম নিয়ে আমার ব্যক্তিগত পর্যালোচনা হার মেনে যায় বরেণ্য লেখক ইয়াহইয়া ইউসুফ নদভী মন্তব্যের কাছে। বইটি পাঠ করে তাঁর মুগ্ধ প্রতিক্রিয়া যখন কাগজে ভেসে উঠে— আমাদের কৌতূহলী চোখ তখন নিবিষ্ট হয় বইয়ের পাতায় পাতায়।

গ্রন্থটি সম্পর্কে তিনি বলেন— ‌পাঠকের হাতের এই বইটি মুহাম্মদ যাইনুল আবিদীনের আত্মজৈবনিক সাক্ষাৎকার। শৈশবের মিষ্টি মিষ্টি স্মৃতি দিয়ে শুরু। সমাপ্তি টানা হয়েছে পারিবারিক গল্প আর তারুণ্যের নির্মাণ ও স্বপ্ন দিয়ে। এর মাঝে আরও আছে অনেক শিরোনাম। নদীর মতো। স্রোতের মতো। বাঁকে বাঁকে থেমে থেমে। ছুটে চলা ঝরনার ছলোছলো সুরের তালে।’ সাক্ষাৎকার মানেই গুচ্ছগুচ্ছ প্রশ্ন। থরে-থরে সাজানো উত্তর। এখানেও তাই ঘটেছে। ছোট ছোট প্রশ্ন খুলে দিয়েছে কথা বলার অজানা সব রুদ্ধ দ্বার।

প্রশ্নের বৈচিত্র্য ও প্রশ্নকারীর মুনশিয়ানায় এঁকেবেঁকে যখন শেষ হবে বইটি, তখন মনে হবে— ‌জলপ্রপাতের তাল-লয়ে বয়ে চলা এই সাজানো অভিযান বেশ তো ছিল! কেন এত জলদি শেষ হয়ে গেল! মুহাম্মদ যাইনুল আবিদীনের এ বিনয়মাখা আত্মজৈবনিক সাক্ষাৎকার জগতে একটি অনুসরণীয় মাইলফলক হয়ে থাকবে বলে আমার বিশ্বাস’।

‘কি এক অপূর্ণতায় কী সাজানো হয়েছে গ্রন্থটি’ এমন প্রশ্ন যদি কেউ তুলেন— বোকার স্বর্গে হয়তো তাঁর চিন্তার বসবাস। তাঁর বিশ্লেষণ শক্তিও দিগভ্রান্ত পথিকের মতো বলে মনে হয়। পথহারা পথিক কী করে অন্যদের পথ দেখাবে? সে পথিক কী বুঝতে পারে— নিজ হাতে নিজের গল্পবলার ভাষা আর অন্যের মুখে শুনা কখনোই এক নয়।

এ গ্রন্থের মাঝ দিয়ে লেখক একটি শূন্যস্থান পূরণ করেছেন মাত্র। যে উত্তর আমাদের হাজারো পাঠককে শুদ্ধতার পাঠ দিবে। গ্রন্থের প্রতিটি হরফ না পড়লে সে পাঠোদ্ধার সহজ নয়।

মুহাম্মদ যাইনুল আবিদীনের আত্মজৈবনিক সাক্ষাৎকার ‘হরফে আঁকা জীবন’ এর সাক্ষাৎকার ও গ্রন্থনা করেছেন দৈনিক সময়ের আলো’র ইসলাম বিভাগের প্রধান আমিন ইকবাল। বইটি প্রকাশ করেছে মাকতাবাতুল ইসলাম প্রকাশনী। অমর একুশে গ্রন্থমেলায় বইটি পাওয়া যাচ্ছে কালিকলম প্রকাশনার ৩৫৭-৫৮ স্টলে। ‘হরফে আঁকা জীবন’ এর মুদ্রিত মূল্য ২৬০ টাকা।

ওমর শাহ
লেখক ও সাংবাদিক

/এসএস

মন্তব্য করুন