রামগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জেরে গরম পানি ছুঁড়ে চাচাকে ঝলসে দিলো ভাতিজা

রামগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২০, ২০১৯

পারভেজ হোসাইন, রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর ) প্রতিনিধি: জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে চাচা এমরানকে (৪৫) ফুটন্ত গরম পানি ঢেলে ঝলসে দিলেন ভতিজা শাহাদাত (২২)। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৯টায় উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়নের সোন্দড়া নয়াবাজার সাইফুলের চায়ের দোকানে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় সোন্দড়া গ্রামে সওদাগর বাড়ীর আব্দুল হাই ভুলু এর সাথে তারই আপন ভাই এমরান হোসেনের সাথে দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। এরই সূত্র ধরে মঙ্গলবার সকালে এমরান স্থানীয় নয়াবাজার সাইফুলের চায়ের দোকানে চা খেতে এলে আব্দুল হাই ভুলুর ছেলে শাহাদাত ও সায়েম এর সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শাহাদাত ক্ষিপ্ত হয়ে দোকানের চুলা থেকে ফুটন্ত গরম পানির কেটলি তুলে চাচা এমরানের গায়ে ঢেলে দেয়। মুহুর্তের মধ্যে এমরানের শরীর অনেকাংশ ঝলসে যায়।

পরে স্থানীয়রা এমরানকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে অবস্থার অবনতি দেখে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে প্রেরন করে কর্তব্যরত চিকিৎসক।

হাসপাতালে কাঁতরাতে কাঁতরাতে মারাত্মক আহত এমরান হোসেন জানায়, আব্দুল হাই ভুলুর দায়েরকৃত একটি মিথ্যা মামলা সোমবার খারিজ করে দেয় আদালত। এত ক্ষিপ্ত হয়ে আব্দুল হাই ভুলুর ছেলে শাহাদাত ও সায়েম এঘটনা ঘটায়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অভিযুক্ত শাহাদাত ও সায়েমের বাবা আব্দুল হাই ভুলু বলেন, আমি সেখানে ছিলাম না। সোমবার আমাদের দায়েরকৃত একটি মামলা আদালতে খারিজ করে দেওয়ার পর থেকে এমরান অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করছিলো। শাহাদাত প্রতিবাদ করতে গেলে এমরান ক্ষিপ্ত হয়ে শাহাদাতকে পানি ছুড়তে চাইলে দুজনের ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে এ ঘটনা।

কান্নাজড়িত অবস্থায় আহত ইমরান হোসেনের স্ত্রী বলেন,দীর্ঘদিনের পুরনো বিষয়কে পুনরায় আবার সামনে এনে অভিযুক্ত শাহাদাত বাহিনী আমার স্বামীর উপর হামলা চালায়,এর আগেও কয়েকবার হামলা চালানোর চেষ্টা করেছে।আমার স্বামী শারিরীক ভাবে আগে থেকেই অসুস্থ, এখন এমন অবস্থায় আরো মারাত্মক হতে পারে। আমি এর সুষ্ঠু তদন্ত চাই এবং সুষ্ঠু বিচার চাই।

রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন,বিষয়টি সরাসরি আমার কানে এসেছে।আমি যাচাই বাছাই করছি।মামলা করার জন্য পুলিশের প্রস্তুতি চলতেছে।আমি আশাকরছি সুষ্ঠু তদন্ত করে অভিযুক্ত কারীদের আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা নিশ্চিত করানো।

/এসএস

মন্তব্য করুন