কাশ্মীর, অযোধ্যার পর এবার বিজেপির নজর আসামের মুসলিমদের দিকে

প্রকাশিত: ৯:০৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৭, ২০১৯

জম্মু-কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন ও বিশেষ অধিকার বাতিল এবং অযোধ্যায় বাবরি মসজিদের স্থলে রাম মন্দির নির্মাণে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের ফলে ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) দুটি নির্বাচনি প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়িত হয়েছে।

২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিশাল জয় পাওয়া নরেন্দ্র মোদির দল আরেকটি প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের দিকে এগুতে শুরু করেছে। এবার তাদের লক্ষ্য আসামের মুসলিমদের উচ্ছেদ করা।

‘নাগরিকত্ব সংশোধন বিল-২০১৬’ লোকসভায় ২০১৬ সালে প্রথমবার উত্থাপন করা হয়। পরে তা যৌথ সংসদীয় কমিটির কাছে পাঠানো হয়। ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে কমিটি পার্লামেন্টে তাদের প্রতিবেদন দাখিল করে এবং তা পাস হয়। রাজ্যসভায় অনুমোদনের অপেক্ষায় থাকা বিলটি ১৬তম লোকসভায় পাস হয়নি।

এখন তা পুনরায় উত্থাপন করা হবে। বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাশ বিজয়াবারগিয়া বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গের জন্য নাগরিকত্ব আইনের সংশোধন একেবারে প্রয়োজনীয় হয়ে পড়েছে। বিজেপি নেতা বলেন, আমরা যেসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছি তা বাস্তবায়ন করেছি। কাশ্মির হয়েছে, অযোধ্যও হয়েছে। এবার আমরা নাগরিকত্ব আইন সংশোধন বিল আনবো। অনুপ্রবেশকারী ঠেকাতে এবং জাতীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পশ্চিমবঙ্গে এটি করা আবশ্যক। দল এখন পশ্চিমবঙ্গে মনোযোগ কেন্দ্রীভূত করছে।

রাজ্যের স্বার্থে অবিলম্বে আমাদের নাগরিকত্ব সংশোধন বিল বাস্তবায়ন করা উচিত। নাগরিকত্ব সংশোধন বিল বিজেপির একটি বিতর্কিত উদ্যোগ। এতে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের সংখ্যালঘু হিন্দু, জৈন, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের শরণার্থী হিসেবে নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে।

এক বিজেপি এমপি বলেন, অধিবেশনে আমরা মূলত পশ্চিমবঙ্গেই মনোযোগ কেন্দ্রীভূত করবো। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে বাংলার পুলিশকে যে প্রতিবন্ধকতায় পড়তে হয়, এমন অনেক ঘটনাই রয়েছে।

আই.এ/

মন্তব্য করুন