মাথা ফাটানোর পর থেকেই ‘পলাতক’ রাবির সেই দুই ছাত্রলীগ নেতা

প্রকাশিত: ৪:০৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০১৯

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ফাইন্যান্স বিভাগের শিক্ষার্থী সোহরাবকে পিটিয়ে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রলীগের দুই কর্মী নাহিদ ও আসিফ লাক ঘটনার পর থেকে লাপাত্তা। ঘটনার পরপরই মোটরসাইকেল নিয়ে হল থেকে বের হয়ে আর ফেরেননি তারা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শহীদ শামসুজ্জোহা হলের ২৫৮ নাম্বার রুমের আবাসিক শিক্ষার্থী আশিফ লাকের রুম তালাবদ্ধ। ২৩২ নাম্বার রুমের আবাসিক শিক্ষার্থী হুমায়ূন কবির নাহিদের রুমও তালাবদ্ধ।

হলের আবাসিক শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সোহরাবকে মারধরের পরপরই তারা হল থেকে বের হয়ে গিয়েছে। আর হলে আসেনি।

তারা হলে অবস্থান করছেন কিনা জানতে চাইলে শহীদ শামসুজ্জোহা হল প্রাধ্যক্ষ ড. জুলকার নায়েনকে মুঠোফোনে পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ১২টায় ছাত্রলীগের দুই কর্মী নাহিদ ও আসিফ লাক সোহরাব নামের শিক্ষার্থী রড ও কাঠ দিয়ে বেধড়ক মারপিট করে। এতে তার মাথায় ফেটে যায় এবং বাম হাত ভেঙে যায়।

রক্তাক্ত ও আহত অবস্থায় সোহরাবকে তার বন্ধুরা উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করায়। সেখানে তার মাথায় ১৫টা সেলাই দেন চিকিৎসকরা। বর্তমানে তিনি হাসপাতালের ৮নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি আছেন।

সংশ্লিষ্ট খবর:
রাবি শিক্ষার্থীকে রুমে ডেকে মাথা ফাটানোর পর হাত ভাঙলো দুই ছাত্রলীগ নেতা

/এসএস

মন্তব্য করুন