পেঁয়াজ আনার ব্যবস্থা নিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১২:১৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৫, ২০১৯

সংসদ সদস্যরা পেঁয়াজ নিয়ে ক্ষোভ জানালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাজার সহনীয় করতে আরও দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হবে। বিদেশ থেকে অর্থাৎ ইজিপ্ট থেকে পেঁয়াজ আমদানির জন্য ইতিমধ্যে লোক চলে গেছে। সেখান থেকে আমরা পেঁয়াজ আনছি। আরও কোন দেশে পেঁয়াজ পাওয়া যায়, সেটা খোঁজ নিয়ে আমরা নিয়ে আসার ব্যবস্থা নিচ্ছি। ইতিমধ্যে ৫০ হাজার মেট্রিক টনের এলসি খোলা হয়ে গেছে। কিছুদিনের মধ্যে চলে আসবে।’

টিসিবির মাধ্যমে ৪৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রির তথ্য তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি যেটা নির্দেশ দিয়েছি, আসার সাথে সাথেই বিশেষ করে টিসিবি এটা নিয়ে নেবে এবং বিতরণের ব্যবস্থা টিসিবি করবে। সমস্ত জেলায় জেলায় ট্রাকে করে এই পেঁয়াজ চলে যাবে। সেইভাবে একটা আয়োজন আমরা করে ফেলেছি।’

পেঁয়াজ নিয়ে ষড়যন্ত্রের সন্দেহের প্রেক্ষাপটে শেখ হাসিনা বলেন,  ‘পেঁয়াজের দাম বাড়ছে, অথচ পেঁয়াজ কিন্তু আছে দেখা যাচ্ছে। আমরা যে অভিযান চালাইনি, তা না। অনেক জায়গায় দেখা গেছে পেঁয়াজ পচে যাচ্ছে। কিন্তু পেঁয়াজ বাজারে ছাড়া হচ্ছে না’

ভারতে পেঁয়াজের দাম নিয়ে তিনি বলেন, ‘এখানে (সংসদে) একজন বিরোধী দলের নেতা বলেছেন, পেঁয়াজ নাকি ভারতে ৮/১০ টাকা। ওটা একটা স্টেটে। সেখান থেকে তারা পেঁয়াজ বাইরে যেতে দিচ্ছে না। শুধু সেখানেই কম দাম, কিন্তু সারা ভারতবর্ষে এখন পেঁয়াজ প্রায় ১০০ রুপিতে বিক্রি হচ্ছে। তাদেরই পেঁয়াজের অভাব এবং তারা বিদেশ থেকে আমদানি করছে। তারপরও আমার অনুরোধে যেগুলো এলসি খোলা হয়েছিল, পেঁয়াজগুলো তারা আনতে দিয়েছিল।’

দেশে পেঁয়াজ উৎপাদন বাড়াতে গবেষণায় জোর দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১২ মাসেই যেন চাষ করা যায়, সেই ধরনের বীজ বারির গবেষকরা উদ্ভাবন করেছেন। ভবিষ্যতে তা বাজারজাত করা হবে।

আই.এ/

মন্তব্য করুন