দুই বছরের জন্য সব ধরণের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ সাকিব

প্রকাশিত: ৭:০৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৯, ২০১৯

বাংলাদেশ জাতীয় দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে দুই বছরের জন্য সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে আইসিসি।

মঙ্গলবার বিকেলে আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিট (আকসু) থেকে এ ঘোষণা আসে। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে আইসিসির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়।

তিনবার ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েও না জানানোয় তার বিরুদ্ধে এ শাস্তির ব্যবস্থা নিল বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা।

২০১৮ সালে ঢাকায় বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা এবং জিম্বাবুয়ের  ত্রিদেশীয় সিরিজ ও আইপিএলে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের জন্য জুয়াড়ির কাছ থেকে প্রস্তাব পেয়েছিলেন সাকিব। কিন্তু নিয়ম অনুযায়ী বিষয়গুলো আইসিসিকে না জানানোয় তাকে এ শাস্তি দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে ওই সময় তাকে জিজ্ঞেস করা হলেও বিষয়টি অস্বীকার করেন সাকিব। পরে তার ফোন কল ট্র্যাক করে ঘটনার সত্যতা পায় দুর্নীতি দমন ইউনিট।

তবে এই শাস্তির বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবেন সাকিব। আপিলে তার বক্তব্য যদি আইসিসি সন্তুষ্ঠ হয় তাহলে তার এ শাস্তির মেয়াদ এক বছর কমতে পারে। তবে আপিলে শাস্তির মেয়াদ কমলে ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত সব ধরণের ক্রিকেট থেকে নির্বাসনে থাকতে হবে বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডারকে।

আইসিসির জেনারেল ম্যানেজার অ্যালেক্স মার্শাল এ ব্যাপারে বলেন, ‘সাকিব আল হাসান একজন অত্যন্ত অভিজ্ঞ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। তিনি অনেকগুলি শিক্ষামূলক অধিবেশনে অংশ নিয়েছেন এবং কোডের আওতায় তাঁর বাধ্যবাধকতাগুলি জানেন। এই পদ্ধতির প্রতিটি তার জানা উচিত ছিল।

আইসিসির আইন অনুযায়ী, বাজিকররা কোনো ক্রিকেটারকে ম্যাচ পাতানোর অফার করলে সেটা সঙ্গে সঙ্গে আকসুকে জানাতে হয়। এটা গোপন করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এক্ষেত্রে ৬ মাস থেকে ৫ বছরও আন্তর্জাতিক কিংবা ঘরোয়া ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হতে পারেন ক্রিকেটার।

/এসএস

মন্তব্য করুন