অন্যের জন্য জীবনের অর্ধেক স্বপ্ন মাটি চাঁপা দিতে হয় মেয়েদের: সুমন

প্রকাশিত: ৮:৫৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৫, ২০১৯

ইসমাঈল আযহার
পাবলিক ভয়েস

মেয়ে হওয়া অতো সহজ বিষয় নয়, একমাত্র মেয়েরাই অন্যের জন্য জীবনের অর্ধেক স্বপ্ন মাটি চাপা দেয়। আজ শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) উদ্যোক্তাদের একটি অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন একথা বলেন।

বক্তব্যের শুরুতে সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে নুসরাতের প্রসঙ্গে কথা বলেন তিনি। ব্যারিস্টার সুমন বলেন, আপনারা সবাই জানেন যে, গতকাল বৃহস্পতিবার ( ২৪ অক্টোবর) নুসরাতের হত্যাকারীদের ফাঁসির রায় ঘোষণা হয়েছে। আমি বাড়ি যাচ্ছিলাম, হঠাৎ মনে হল, সাবেক ওসি মোয়াজ্জেমের কারণেই হয়ত আজ নুসরাত পৃথিবীতে নেই।

তিনি বলেন, আমি দেখলাম মামলার চার্জশিটে ওসি মোয়াজ্জেমের নাম নেই। থাকলে হয়ত আজ তার ব্যাপারেও মৃত্যুদন্ডের রায় ঘোষণা হতো। কিন্তু নাম না থাকায় বেঁচে গেছেন তিনি।

সুমন বলেন, আমি ওসি মোয়াজ্জেমের ব্যাপারে মামলা করার তিনি জেলে গেলেন। মজার বিষয় হয়, আমি যখন শাক্ষি দেওয়ার সময় তার সঙ্গে আমার দেখা হয়। সুমন বলেন, এসময় ওজি মোয়াজ্জাম একটা আইনজীবীকে দিয়ে আমাকে জিজ্ঞেস করতে বললেন, উনাকে জিজ্ঞেস করেন তো, আমার বাড়ি যশোর, নুসরাতের বাড়ি ফেনী, আর ব্যারিস্টার সুমনের বাড়ি হোবিগঞ্জ। উনি কেন আমার পেছনে লেগেছে? আমি উনার কী ক্ষতি করেছি? আমার সঙ্গে আর তার সঙ্গে তো জায়গা-জমি নিয়েও কোনো সম্পর্ক নেই! তখন আমি বলেছি, পাপের ঘর যখন পূর্ণ হয়, আজরাইলের আগমন তখন কুজাইরা থেকে হয়।

তিনি আরও বলেন, নুসরাতের এই বিষয়টা আমার জীবনে বড় একটা বিষয় ছিল। এটা নিয়ে আমাকে অনেক দৌড়ঝাপ করতে হয়েছে। এটার জন্য আমাকে অনেক হুমকি দেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, আপনারা কল্পনাও করতে পারবেন না, বাংলাদেশের মতো জায়গা একজন ওসিকে থানায় নিয়ে গেলে কী পরিমান সমস্যা পড়তে হয়।

অনুষ্ঠানে সুমন আবেগপ্রবণ হয়ে বলেন, এখন আমার জীবনে একটাই স্বপ্ন, আর তা হল নুসরাতের আত্মাকে শান্তি পৌঁছানো। যদি ওসি মোয়াজ্জেমের শাস্তি হয় তাহলে নুসরাতের আত্মা শান্তি পাবে। ওসি মোয়াজ্জেমের শাস্তি যদি নিশ্চিত হয়, আর তারপর যদি আমি পৃথিবী থেকে বিদায় নিই, আমি মনে করি বিধাতার কাছে জবাব দেওয়ার জন্য কোনো একটা জিনিস আমার অর্জন হল।

এসময় বালিশ দুর্নীতিসহ আরও বেশ কিছু বিষয় নিয়ে কথা বলেন সুমন। আমাগী মাসে ওসি মোয়াজ্জেমের রায় হবে। তার ফাঁসির রায়ের জন্যও সবাইকে প্রার্থনার আহ্বান জানান ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন।

আই.এ/

মন্তব্য করুন