নারী অবমাননার প্রতিবাদে জাবিতে নারী শিক্ষকদের মানববন্ধন

প্রকাশিত: ১:৪৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০১৯

জাবি প্রতিনিধি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্যের কুশপুত্তলিকা দাহনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে নারীর প্রতি অবমাননা ও সহিংসতার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টির নারী শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

অন্যায়ের বিরুদ্ধে এবং উন্নয়নের পক্ষে জাহাঙ্গীরনগর নারী-শিক্ষকদের আয়োজনে মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) বেলা সাড়ে দশটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার সংলগ্ন সড়কে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এর আগে ২০ অক্টোবর উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামের অপসারণের দাবিতে তার ছবি সংবলিত কুশপুত্তলিকায় শাড়ী পেচিয়ে পুড়িয়েছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এই ঘটনাকে ‘নারীর প্রতি অবমাননা ও সহিংসতা’ এবং ‘ন্যাক্কারজনক ঘটনা’ বলে আখ্যায়িত করে এর প্রতিবাদে আজ এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে অধ্যাপক আয়েশা সিদ্দিকা বলেন, ফারজানা ইসলামে বাংলাদেশের প্রথম নারী উপাচার্য এবং তিনি একজন সম্ভ্রান্ত পরিবারের সদস্য। তার ছবি পোড়ানো মানে তাকে পোড়ানো।

সুমনা গুপ্ত বলেন, নারীর শাড়ীতে আগুন দেওয়া মানে নারীকে বড় হতে বাধা দেওয়া, নারীর উন্নয়নে বাঁধা দেওয়া। এতে নারীর আদর্শকে অবমাননা করা হয়েছে।

অধ্যাপক শাশ্বতী মজুমদার বলেন, কুশপুত্তলিকা দাহ করা মানে অশুভ শক্তিকে দমন করা। কিন্তু বর্তমান ভিসি আশীর্বাদস্বরুপ। তাঁকে অশুভ শক্তির সাথে তুলনা করা অযৌক্তিক।

আই.এ/

মন্তব্য করুন