টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গাসহ ২ মাদক বিক্রেতা নিহত

প্রকাশিত: ১১:৫৭ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১২, ২০১৯

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে রোহিঙ্গাসহ দুই ‘মাদক বিক্রেতা’ নিহত হয়েছেন।  টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ শনিবার ভোর রাতে সদর ইউনিয়নের পর্যটন বাজার সংলগ্ন মালি পাহাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন। ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩ পুলিশ সদস্যও আহত হন।

নিহতরা হলেন- টেকনাফ সদর ইউনিয়নের হাতিয়ারঘোনা এলাকার হামিদ হোসেনের ছেলে আহম্মদ হোসেন (৪৫) এবং হ্নীলা ইউনিয়নের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ব্লক-ডি ও শেড নম্বর-২৮ এর বাসিন্দা মৃত কালু মিয়ার ছেলে আব্দুর রহমান(৪৬)।

নিহতরা চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও সংঘবদ্ধ মাদকচক্রের সদস্য। তারা দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসায় জড়িত। তাদের বিরুদ্ধে টেকনাফ থানায় একাধিক মাদক মামলা রয়েছে।

শুক্রবার রাতে হাতিয়ারঘোনা এলাকা থেকে আহম্মদ ও রহমানকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে ইয়াবা ও অস্ত্র মজুদ থাকার কথা স্বীকার করেন বলে পুলিশের ভাষ্য। এরপর তাদের নিয়ে অভিযানে বের হয় পুলিশ। ওসি বলেন, ‘ঘটনাস্থলে পৌঁছামাত্র আহম্মদ হোসেন ও আব্দুর রহমানের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ করে গুলি ছুড়তে থাকে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে গোলাগুলি থেমে গেলে ঘটনাস্থলে দুজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। এতে পুলিশের ৩ সদস্য আহত হয়। ঘটনাস্থলে তল্লাশি করে পাওয়া যায় দেশে তৈরী দুটি বন্দুক, চারটি গুলি ও ৫ হাজার ইয়াবা।’

গুলিবিদ্ধ আহম্মদ ও রহমানকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। এরপর লাশ দুটি কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ওসি প্রদীপ জানান, মাদক পাচারের অভিযোগে আহম্মদের বিরুদ্ধে ছয়টি এবং রহমানের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। তারা পলাতক ছিলেন।

 আই.এ/

মন্তব্য করুন