বৃষ্টি হওয়ায় রাজধানীতে ব্যাপক জনভোগান্তি

প্রকাশিত: ১১:৪২ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৯

বৃষ্টি হওয়ায় রাজধানীতে ব্যাপক জনভোগান্তি সৃষ্টি হয়েছে। রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন সড়কে গতকাল বৃষ্টির পানি ঢেউ খেলছে। শহরের প্রধান প্রধান সড়ক থেকে শুরু করে এঁকে বেঁকে যাওয়া গলিপথগুলো যেন হয়ে যায় প্রবাহমান নদী। আর এ নদীতে বাস, রিকশাগুলো যেন ছোট ছোট লঞ্চ, ডিঙ্গি নৌকা। বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় সাধারণ মানুষকে চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়। গত কয়েকদিন রাজধানীতে থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে। দফায় দফায় ঝুম বৃষ্টি এবং বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় কর্মজীবী মানুষের জন্য রাজধানী দুর্ভোগের শহরে পরিণত হয়।

রোববার (২৯ সেপ্টেম্বর)  দুপুর থেকে শুরু হয় তুমুল বর্ষণ। এতে ঢাকা শহরের অধিকাংশ রাস্তা পানি জমে যায়। এ অবস্থায় অফিস ফেরৎ যাত্রীদের নাকাল হতে হয়। এমনিতেই পরিবহন সঙ্কট; আবার ভারী বর্ষণে পানি জমার সঙ্গে সঙ্গে যানজটের ভোগান্তি পোহাতে হয় লাখ লাখ মানুষকে। বৃষ্টির কারণে শহরের অলিগলিসহ ছোট-বড় বিভিন্ন সড়কে দেখা দেয় পানিবদ্ধত। প্রায় সারা শহরজুড়ে ছিল অভিন্ন চিত্র। গত শনিবার দুপুর থেকেই রাজধানীতে শুরু হয় বৃষ্টিপাত।

রোববারের প্রবল বর্ষণে নগরীর নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ সড়কে পানি জমে সৃষ্টি হয়েছে চরম ভোগান্তির। দুপুরের পর থেকেই স্কুল, কলেজ, মাদরাসা, বিশ্ববিদ্যালয় ও অফিস আদালত থেকে বাসায় ফেরা মানুষসহ নানা প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হয়েই নগরবাসীকে পড়তে হয়েছে দুর্ভোগে।

বৃষ্টির পানি রাস্তা-ঘাট ডুবে যাওয়ায় রিকশা ও অটোরিকশার চালকরাও যাত্রীদের কাছ থেকে সুযোগ বুঝে আদায় করেছে অতিরিক্ত ভাড়া। এদিকে দুপুরের বৃষ্টির পানিতে ডুবে যায় সচিবালয়ের বিভিন্ন ভবনের নীচতলা ও প্রবেশ পথসহ ভিতরে চলাললে রাস্তা। বৃষ্টির কারণে চলাচলের ক্ষেত্রে বিপাকে পড়েন সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

সচিবালয়ে ৬ ও ৭ নম্বর ভবনের মাঝামাঝি স্থান, ৪ নম্বর ভবনের চারপাশ, ৩ নম্বর ভবনের পূর্বপাশে সচিবালয়ের মূল রাস্তাসহ বিভিন্ন স্থান পানিতে তলিয়ে যায়। অফিস শেষে বাড়ি ফিরতে অনেককেই বাধ্য হয়ে পানি দিয়ে সাচিবালয় ছাড়তে দেখা যায়। ৬ নম্বর ভবনসহ ক্লিনিক ভবনের পেছনের রাস্তায় প্রায় হাঁটু পানি জমে যায়।

ওপর থেকে দেখলে মনে হয় সচিবালয়ে পার্ক করা গাড়িগুলো পানিতে ভাসছে। এছাড়া রাজধানীতে মেট্রোরেলের কাজ শুরুর পর থেকে হালকা বৃষ্টি হলেই রাজধানীর কাজীপাড়া থেকে ১০ নম্বর গোলচত্বর পর্যন্ত পানি জমে যায়। পুরো রাস্তাজুড়েই কোথাও হাঁটু, কোথাও কোমর পরিমাণ পানি। আর তাতে যান চলাচলের এমনই অবস্থা হয় যে, সাধারণ জনগণকে বাস ছেড়ে গন্তব্যে পৌঁছাতে উঠতে হয় ভ্যান, রিকশা অথবা নৌকায়।

আই.এ/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন