বিমানে ঘুমন্ত স্ত্রীকে না জাগিয়ে ৬ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে রইলেন স্বামী

প্রকাশিত: ৯:৪৪ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯

সময় পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে পরিবর্তন হয়েছে অনেক কিছু। মানুষ অনেক এগিয়ে গেছে। বিজ্ঞানের অগ্রগতি হয়েছে। পুরুষের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে এগিয়েছে নারীরাও।  কিন্তু স্বামী ও স্ত্রীর ভালোবাসার মধ্যে কি কোনো পরিবর্তন ঘটেছে। হয়তবা ঘটেছে। আজ স্বচ্ছ ভালবাসা স্বামী স্ত্রীদের মধ্যেও খুব কম দেখা যায়। ওপর থেকে দেখা যায় দম্পতি সুখে আছে কিন্তু খোঁজ নিলে জানা যায় আসলে কী ঘটছে সংসারে।

কোনো কোনো দম্পতির ভালবাসা নজিরবিহীন। সম্প্রতি উত্তর আমেরিকার ইন্ডিয়ানা প্রদেশে এমনই এক দম্পতির সন্ধান পাওয়া গেছে। বিমানে স্ত্রী সিটজুড়ে ঘুমাচ্ছে। ঘুমন্ত স্ত্রীকে না জাগিয়ে চলন্ত বিমানে ঠায় ৬ ঘণ্টা দাড়িয়ে রইলেন স্বামী। কোর্টনি লিও জনসন নামে এক টুইটারাট্টি একটি মাইক্রোব্লগিং ওয়েয়সাইটে ওই দম্পতির ছবি পোস্ট করার পর পরই তা ভাইরাল হয়ে যায়।

এদিকে কেউ এই ঘটনাকে প্রকৃত প্রেমের উদাহরণ হিসেবে দেখছে। আবার অনেকে সমালোচনা করেছেন মহিলাটির। ইন্ডিয়া টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, অজ্ঞাত পরিচয়ের ওই দম্পতির ছবি পোস্ট করে কোর্টনি লিও জনসন লিখেছেন, ‘স্ত্রী যাতে নিশ্চিন্ত ঘুমোতে পারেন তাই ওই ব্যক্তি টানা ৬ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে ছিলেন। এটাই হল সত্যিকারের ভালোবাসা।’ আর তার এই ভিডিওটি পোস্ট করার পরেই কেউ কেউ জনসনের ‘ভালোবাসা’ শব্দটির ব্যবহার নিয়ে আপত্তি তুলেছেন।

তাদের মতে, নিজের ঘুমের জন্য স্বামীকে ৬ ঘণ্টা দাঁড় করিয়ে রাখা ভালোবাসা নয় স্বার্থপরতার উদাহরণ। কেউ উল্লেখ করেছেন, ওই নারীটি স্বামীকে সিটে বসিয়ে তার কোলে মাথা রেখে আরামেই ঘুমোতে পারতেন। তাহলে দুজনেরই সুবিধা হতো। কিন্তু তা না করে শুধু নিজের স্বার্থ দেখেছেন ওই নারী। আর এ বক্তব্যকে সমর্থন করেছেন অনেকেই। আবার চলন্ত বিমানে অতক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকা কী সম্ভব? বিমান সংস্থার কর্মীরা কি এটা করতে দেবেন? এমন প্রশ্নও রেখেছেন কেউ কেউ।

ইসমাঈল আযহার/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন