অসহনীয় শব্দ

প্রকাশিত: ৮:২১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১১, ২০১৮

ঘুম চোখে নির্ঝর ঘড়ির টিক টিক শব্দ শুনতে লাগল। ভোর হতে তখনো ৪ ঘণ্টা বাকি। পাশে নাক ডেকে ঘুমুচ্ছে নাহিদ আর রাফি। উভয়ের নাকের আওয়াজে নির্ঝরের ঘুম হারিয়ে গেল খানিক আগে। শত চেষ্টা করেও ঘুমের দেখা পেল না আর। ধীরে ধীরে রাগের মাত্রা বেড়েই চলছে নির্ঝরের। কী করবে খুঁজে পাচ্ছে না। হঠাৎ বুদ্ধি উদয় এলো, নাক চেপে ধরলে কেমন হয়? মন্দ হবে না বোধ হয়। যে ভাবা সে কাজ। নির্ঝর পাশের কাপড় দিয়ে নাহিদের নাকে হাত, ঠিক তখই নাহিদ ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে গেল। জড়সড় হয়ে বসে জিজ্ঞেস করল, কী হয়েছে?

কিছুই না। হাসের মতো কী যেন শব্দ হচ্ছে, সেটা শোনার আগ্রহে বসে আছি। নাহিদ কোনো কথা না বাড়িয়ে ঘুমিয়ে পড়ল।

অন্য দিকে রাফির নাক ডাকার শব্দ তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে। রাগে ক্ষোভে নির্ঝর রাফির দিকে তাকিয়ে আছে। মনে হচ্ছে, এখনই লাফিয়ে পড়বে। কিন্তু না। নির্ঝর অনেকটা শান্ত। নিজেকে স্থির রাখতে পারে খুব সহজেই। এ কারণে বাড়ির সবাই তাকে ভালোবাসে। আদর করে স্যাররাও। নির্ঝর কোনো উপায় না পেয়ে কাঁথা ধরে দিলো টান। সঙ্গে সঙ্গে দাঁড়িয়ে গেল রাফি। নির্ঝর চুপচাপ ঘুমের ভান করে শুয়ে আছে। কোনো সাড়াশব্দ নেই। এদিক-ওদিক তাকিয়ে কাঁথা গায়ে দিয়ে আবার ঘুম দেয় রাফি।

১০ মিনিট হয়নি এখনো। নাকের শব্দ ক্রমেই বেড়ে চলছে নাহিদের। তবে আওয়াজ এখন ব্যতিক্রম। শব্দের মাঝে কেমন যেন ছন্দ অনুভব হচ্ছে। কবিরা সব কিছুতেই ছন্দ খুঁজে ফেরেন। নির্ঝরের ভেতর ইদানীং কবি কবি ভাব। কয়েকটা কবিতাও লিখেছে সে। দারুণ হয়েছে। সম্ভাবনাময় কবি। সে দিন একটি কবিতা লিখে পোস্ট করেছে ফেসবুকে। কত যে লাইক আর কমেন্ট তার কোনো ইয়ত্তা নেই। এতে নির্ঝর আরো উৎসাহ পায়। মনে মনে ভাবে, আমাকে কবি হতে হবে। কিন্তু মাত্রায় সে প্রায়ই ভুল করে থাকে। কয়েকজন তাকে সতর্কও করেছে। নির্ঝর কারো কথায় কান দেয় না। সে চলে নিজের মতো করে।

নাহিদ তার নাকডাকার শব্দ ধীরে ধীরে বাড়িয়ে দিচ্ছে। নির্ঝর আজ আর রাগ দমাতে পারেনি। চেপে ধরল নাক। লাফিয়ে উঠল নাহিদ। খুব ধমক দিয়ে বলল নির্ঝরÑ ‘নাক ডাকিস কেন? দ্বিতীয়বার শব্দ এলে নাক কেটে ফেলব। বুঝলি?’

নাহিদ বেচারা মুখটা অসহায়ের মতো করে শুয়ে পড়ল। নির্ঝরের চেঁচামেচিতে জেগে গেল রাফিও। বলল, ‘কী হয়েছে?’

গরু তাড়া করছিলাম, তাই নাহিদ জেগে গেছে। ঘুমের ঘোরে মাথা নাড়িয়ে শুয়ে পড়ল রাফি।

অগত্যা নির্ঝর রাগের মাত্রা কমিয়ে নীরবতা পালন করল।

মন্তব্য করুন