পুলিশে একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড

প্রকাশিত: ৯:৫৪ অপরাহ্ণ, জুন ৪, ২০২০

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ ৩২৪ জন পুলিশ সদস্যের নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্ত করা হয়েছে। বাহিনীটিতে একদিনে আক্রান্তের দিক দিয়ে এটিই এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ সংখ্যা। এর আগে গত ১৬ মে একদিনে সর্বোচ্চ ২৪১ জন পুলিশ সদস্যের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

আজ বৃহস্পতিবার পুলিশ সদর দপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ মোট ৩২৪ জন সদস্যের কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে বাহিনীটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৫ হাজার ৮৩১ জন। শুধু ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে (ডিএমপি) আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৭৭৭ জন সদস্য।

পুলিশ সদর দপ্তর ও ডিএমপি সূত্রে জানা যায়, দেশে করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে গিয়ে এখন পর্যন্ত ১৭ জন পুলিশ সদস্য করোনাভাইরাসের আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন। এর মধ্যে ১৫ জন সদস্য সরাসরি বাহিনীটিতে কর্মরত ছিলেন এবং ২ জন সিভিল কর্মকর্তা ছিলেন। যারা বাংলাদেশ পুলিশে সংযুক্ত ছিলেন।

আরো জানা যায়, আক্রান্তদের মধ্যে ২ হাজার ১২২ জন পুলিশ সদস্য ইতোমধ্যে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়েছেন। তাদের মধ্যে অনেকেই আবার নিজ নিজ কর্মস্থলে যোগ দিয়েছেন। এছাড়া করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে দেশের বিভিন্ন পুলিশ হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি রয়েছেন ১ হাজার ৬৪০ জন। আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসায় কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৫ হাজার ৫৫৯ জন।

পুলিশ সদর দপ্তরের সহাকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি মিডিয়া) সোহেল রানা বলেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যে বর্তমানে মাঠে কর্মরত পুলিশ সদস্যরা যাতে সুরক্ষিত এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে দায়িত্ব পালন করতে পারে, তাই তাদের সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি জানানো হচ্ছে। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বাহিনীর বিভিন্ন ইউনিটে গিয়ে তাদের এসব স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে নির্দেশনা দিচ্ছেন। পাশাপাশি তাদের পর্যাপ্ত জীবাণুনাশক ও সুরক্ষা সামগ্রী সরবরাহ এবং সেগুলোর ব্যবহার নিশ্চিত করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, পুলিশ বাহিনীতে সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে বিভিন্ন ধরনের সতর্কতামূলক পদক্ষপে গ্রহণ করা হয়েছে। পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদের নির্দেশে এসব পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়। যার মধ্যে রয়েছে- আক্রান্তদের চিকিৎসা সেবা প্রদানের জন্য বেসরকারি হাসপাতাল ভাড়া করা, পুলিশ হাসপাতালগুলোতে পর্যাপ্ত চিকিৎসা সরঞ্জাম সংরক্ষণ ও উন্নত চিকিৎসা সরঞ্জাম সংযোজন করা।

এমএম/পাবলিকভয়েস

মন্তব্য করুন