ঘূর্ণিঝড় আম্ফান ‘মরার ওপরে খাঁড়ার ঘা’: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

প্রকাশিত: ১১:৪১ পূর্বাহ্ণ, মে ২০, ২০২০
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

চলমান করোনা বিপর্যয়ের মধ্যে ঘূর্ণিঝড় আম্ফানকে ‘মরার ওপরে খাঁড়ার ঘা’ বলে মন্তব্য করেছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার রাজ্য সচিবালয় নবান্ন সংবাদ সম্মেলনে ওই মন্তব্য করেন।

মমতা বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড় এখন মরার ওপর খাঁড়ার ঘায়ের মতো। অনেকে বলছেন ‘‘আয়লা’’ ঝড়ের থেকেও ভয়ঙ্কর হবে। আগামীকাল বাড়ি থেকে কেউ বেরোবেন না। ঘূর্ণিঝড়ে কী হবে, তা কেউ জানে না। এ সময়ে কেউ সাগরে যাবেন না।’

বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘ঝড় থামার পরেই বাড়ি থেকে কেউ বেরোবেন না। বৃহস্পতিবার প্রশাসন বলার পরে বাইরে বেরোন।’ দুর্যোগ মোকাবিলায় ২৪ ঘণ্টার কন্ট্রোল রুম চালু করাসহ যোগাযোগের জন্য একাধিক ফোন নম্বর দেওয়া হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এরইমধ্যে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় ২ লাখ মানুষকে অন্যত্র সরানো হয়েছে। উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় ৫০ হাজার মানুষকে সরানো হয়েছে। পূর্ব মেদিনীপুর ৪০ হাজার এবং পশ্চিম মেদিনীপুরে ১০ হাজার মানুষকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।’

মুখ্যমন্ত্রী এদিন উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার বিস্তীর্ণ এলাকা ক্ষতিগ্রস্ত এবং মেদিনীপুর জেলার একাংশেও ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব পড়তে পারে বলে সতর্ক করেছেন।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, সাগর, ফ্রেজারগঞ্জ, বাসন্তী, ক্যানিং-সহ একাধিক সমুদ্র উপকূলবর্তী এলাকায় আঘাত হানবে আম্ফান। রাজ্য সরকার সবরকমভাবে প্রস্তুত আছে। সব জেলার জেলাপ্রশাসক, পুলিশের এসপি, আইসিদের প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

উল্লেখ্য, আম্ফানের প্রভাবে পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কোলকাতায় আজ বুধবার ঘণ্টায় ১১০ থেকে ১২০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়া হাওয়া বইতে শুরু করেছে। কোলকাতা পুরসভা ও পুলিশের পক্ষ থেকে বিপজ্জনক বাড়ির বাসিন্দাদের সতর্ক করাসহ তাদেরকে অন্যত্র সরে যেতে বলা হয়েছে।

/এসএস

মন্তব্য করুন