আম্ফানের গতিপথ বদল, ঝুঁকি বাড়ল বাংলাদেশের

প্রকাশিত: ৭:৩৪ অপরাহ্ণ, মে ১৯, ২০২০

স্যাটেলাইটের মাধ্যমে নির্দিষ্ট সময় পর পর ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের গতিবিধি পরীক্ষা করেন আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা। ওই গতিবিধির ওপর নির্ভর করে তারা আগাম সতর্কবার্তাও দিয়ে থাকেন। গতকাল সোমবারের গতিবিধি অনুযায়ী আবহাওয়াবিদরা বলেছিলেন, ভারতের পশ্চিবঙ্গেই মূল আঘাত হানবে আম্পান। কিন্তু সবশেষ গতিবিধি অনুযায়ী এটি উত্তর-পূর্ব দিকে কিছুটা বাঁক বদল করেছে। আর এতে ঝুঁকি বেড়ে গেছে বাংলাদেশের জন্য।

ইতোমধ্যে সুপার সাইক্লোনে রূপ নেওয়া আম্পান পশ্চিমবঙ্গ থেকে কিছুটা ডান দিকে সরে গেছে। তাতে করে এখনকার গতিবিধি অনুযায়ী এটি ভারত বাংলাদেশ সীমান্তের সুন্দরবন অংশে মূল আঘাত হানার কথা। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে ওই এলাকার কয়েকটি জেলা।

ইতোমধ্যে ওইসব এলাকাকে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। জেলাগুলোর মধ্যে রয়েছে- সাতক্ষীরা, খুলনা, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, বরিশাল, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর। এই জেলাগুলোর অদূরবর্তী দ্বীপ বা চরসমূহকেও ০৭ নম্বর বিপদ সংকেত দেখানো হয়েছে। এছাড়া কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে দেওয়া হয়েছে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত।

বর্তমানে ঘূর্ণিঝড়টি সর্বোচ্চ ২২৫ কিলোমিটার গতিতে বয়ে চলছে। এর গতিপথে সাগর খুবই উত্তাল। লোকালয়ে আঘাত হানার আগে বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ২৪৫ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়তে পারে।

এমএম/পাবলিকভয়েস

মন্তব্য করুন