বাড়ির মালিকদের কাছে ব্যারিস্টার সুমনের বিশেষ অনুরোধ

প্রকাশিত: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ, মে ১৩, ২০২০

করোনাভাইরাস মহামারিতে সৃষ্ট সংকটে রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকার বাসা মালিকদের কাছে ভাড়া মওকুফের অনুরোধ জানিয়েছেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের সাবেক প্রসিকিউটর ও সমাজসেবক ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

নিজস্ব ফেসবুক পেজ থেকে এক ভিডিও বার্তায় তিনি দেশের বিভিন্ন এলাকার বাসা মালিকদের এই অনুরোধ জানান।

তিনি বলেন- করোনাভাইরাসের এই সময়ে ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মারা যাবো নাকি না খেয়ে মারা যাবো সে প্রশ্নের সাথে সাথে আরেকটা প্রশ্ন যোগ হয়েছে যে এখন আমরা বাড়ি ভাড়া দিব কিভাবে। প্রায় তিন মাস হয়ে গেছে আমার মত লোক আমি লকডাউনে আছি। এখন আমার ঢাকার বাসার বাড়ি ভাড়া দেয়া আমার পক্ষে কঠিন।

এসব বিবেচনায় বিভিন্ন জায়গায় বাড়ির মালিকদের উদ্দেশে একটা কথা বলতে চাই। দেখেন যারা বাড়ির ভাড়াটিয়া তারা বেশিরভাগই বিভিন্ন জায়গায় চাকরি করেন। তার মধ্যে বেসরকারি খাতে যারা চাকরি করেন তারা ঠিকমত বেতনই পায়নি। বোনাস তো অনেক দূরের কথা অপরদিকে যারা সরকারি চাকরি করেন তারা কোন মতে বেতনটুকু হয়ত পেয়েছেন।

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, এ অবস্থায় আমি একটা কথা আপনাদের যারা মালিক আছেন বাড়ির মালিক আছেন তাদেরকে বলতে চাই, আপনাদের সামনে হয়ত আগামী ১০০ বছরে এমন অবস্থা আর আসবে না। তাই যারা সামর্থ্যবান আছেন তারা অন্তত ভাড়াটিয়াদের ভাড়া মওকুফ করার অনুরোধ রইল। বিশেষ করে যারা বাড়ি ভাড়ার উপর নির্ভরশীল নন তারা অন্তত বাসা ভাড়া মওকুফ করতে পারেন।

তিনি বলেন, আমি এমন অনেককেই চিনি যারা বাড়ি ভাড়ার উপর নির্ভরশীল নন অতএব আপনারা অন্তত ভাড়াটিয়াদের এই বিপদের দিকে তাকিয়ে বাসা ভাড়া মওকুফ করার বিষয়ে চিন্তা করবেন। কারন যেকোন ভাড়াটিয়াদের পক্ষেই এমন পরিস্থিতিতে তিন-চার মাসের ভাড়া দেওয়া কষ্টকর বিষয়। এমনকি ব্যারিস্টার সুমন নিজের কথা উল্লেখ করে বলেন আমি নিজেও চিন্তিত অবস্থায় আছি কিভাবে এই বাসা ভাড়া ম্যানেজ করব এবং মালিক কে দিব।

তিনি বাড়ির মালিকদের প্রতি অনুরোধ করে বলেন- আপনারা যদি এমন পরিস্থিতিতে বাসা ভাড়া মওকুফ করেন তাহলে দেখবেন ভাড়াটিয়া এবং মালিকের সাথে সম্পর্কটা আর একটু অন্যরকম মাত্রায় চলে যাবে। এবং আপনিও মানসিকভাবে একটা তৃপ্তি পাবেন যে আপনি বাড়ি ভাড়া মওকুফ করে দিয়ে আপনি একটা নতুন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

তিনি আরও বলেন – আপনাদরর একটা কথা বলছি। দেখেন, আমরা আমাদের লোকজনের পাশে না দাঁড়ালে পৃথিবীর আর কে দাঁড়াবে বলেন। পৃথিবীর অন্যান্য দেশে সরকার বিভিন্নভাবে ব্যাংক একাউন্টে টাকা পাঠাচ্ছে এই ব্যাংকে একাউন্টে টাকা দিয়ে বিভিন্ন দেশের লোকজন চলতেছেন। তাদের হয়ত এত চিন্তা নাই কিন্তু আমরা তো মানসিকভাবে এবং শারীরিকভাবে উভয় দিক থেকেই গরীব। এমনিতে আমাদের অর্থনৈতিক সমস্যা তো আছেই। তার মধ্যে দুর্নীতি করে আমরা দেশের বারোটা বাজাচ্ছে এটা অবশ্যই আমাদের মানসিক দৈন্যদশার প্রমাণ।

আমাদের সরকার কতটুকু আমাদেরকে সহযোগিতা করবেন। তারা একা কতটুকু আমাদেরকে সহযোগিতা করবে বলেন। সরকার খাবার দিতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন সেখানে বাড়তি অর্থনৈতিকভাবে কি সাহায্য করবে বলেন। তাই আবারও আমি আপনাদের কাছে একটা কথা অনুরোধ করতে চাই যে, এমন পরিস্থিতিতে তিন মাসের ভাড়া ম্যানেজ করে বাড়ির মালিকদের কে দেওয়া সত্যিই কষ্টকর বিষয়। তাই যাদের পক্ষে সম্ভব তারা অন্তত বাসা ভাড়া মওকুফ করুনন। অন্তত হলেও এক মাস, দুই মাস, তিন মাস যে যা পারেন ততটুকু বাসা ভাড়া মওকুফ করে দিন।

#আরআর/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন