ত্রিশালে করোনায় যুবকের মৃত্যু, দাফন-কাফনে ইকরামুল মুসলিমীন ফাউন্ডেশন

করোনাভাইরাস পরিস্থিতি

প্রকাশিত: ৭:৩৫ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২১, ২০২০

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মোমেনশাহীর ত্রিশালে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় ইকরামুল মুসলিমীন ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনায় ওই যুুবকের লাশ কাফন-দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

গতকাল সোমবার দুপুরে মোমেনশাহীর ত্রিশালে ওই যুবকের ‍মৃত্যু হয়। যুবকের নাম মেহেদী হাসান রনি। রনি উপজেলার সাখুয়া ইউনিয়নের সরদার বাড়ীর বাবুল সরদারের বড় ছেলে।

পরে যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে রাতে যুবকের লাশ দাফনের ব্যবস্থা করে ইকরামুল মুসলিমীন ফাউন্ডেশন মোমেনশাহী জেলা শাখা টিম।

জানা যায়, গতকাল সোমবার দুপুরে নিজ বাড়ীতে হোম আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় মেহেদী হাসান রনি মৃত্যু বরণ করেন। এর আগে ওই যুবকের নমুনা সংগ্রহ করে মোমেনশাহী মেডিকল কলেজ হাসপাতালে পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হলে কোভিড-১৯ পজেটিভ আসে।

পরে সোমবার যুবকের মৃত্যু হলে ইকরামুল মুসলিমীন ফাউন্ডেশন টিমকে খবর পাঠান ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান।

ইকরামুল মুসলিমীন ফাউন্ডেশন মোমেনশাহী জেলার টিম প্রধান মুহাম্মাদ এহসালুন হক বলেন, সোমবার রাতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান স্যার আমাদেরকে ফোন করেন। তারপর আমরা যুবকের বাড়ী গিয়ে লাশ কাফন-দাফন ও জানযার ব্যবস্থ করি।

এহসালুন হক বলেন, আমাদের জেলার শাখার সদ্যসরা মিলেই গোসল দিয়ে জানযা পড়িয়ে লাশ দাফন করি। এছাড়া মোস্তাফিজুর রহমান স্যার আমাদেরকে সার্বক্ষণিক সঙ্গ দিয়েছেন এবং সার্বিক সহযোগিতা করেছেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন টিম সহকারী মুহাম্মদ শাহজাহান কবির, মুফতী মোস্তফা আল হোসাইনী, মুফতী সানাউল্লাহ নানুপুরী, মাও.আহসান হাবিব ত্রিশালী, মুহাম্মদ আসাদুল ইসলাম প্রমুখ।

এসময় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হিসেবে ইকরামুল মুসলিমীন ফাউন্ডেশন সদস্যদের কার্যক্রম এবং সাহস ও দৃঢ়তার প্রশংসা করেন ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান।

এদিকে ত্রিশালের ইউএনও-সহ ইকরামুল মুসলিমীন ফাউন্ডেশন মোমেনশাহী জেলা ও ত্রিশাল থানা টিমকে কেন্দ্রীয় টিমের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক মুফতী হাবিবুর রহমান মিছবাহ।

তিনি জানান, সারাদেশে ইতোমধ্যে সংগঠনের ৩৩টি জেলাসহ ৫০+ টিম সক্রিয় রয়েছে। যারা নিয়মিত জেলা প্রশাসক/সিভিল সার্জন/ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা, সবার সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করছেন। অন্যান্য জেলায়ও টিম গঠনের কাজ প্রক্রিয়াধীন বলেও তিনি উল্লেখ্য করেন।

মোমেনশাহী জেলা টিমসহ যারাই এই দূর্দিনে মানবতার সেবায় নিজেদেরকে স্বেচ্ছাশ্রমে সাহসী এ কাজে নিয়োজিত করে ইকরামুল মুসলিমীন ফাউন্ডেশন এর কাফন-দাফন কার্যক্রমে অংশ নিচ্ছেন তাদের সকলকে ধন্যবাদ জানান মুফতী হাবিবুর রহমান মিছবাহ, মহাসচিব মুফতী মুহিব্বুল্লাহ, কেন্দ্রীয় সদস্য মুফতী আব্দুর রহমান কোব্বাদী।

/এসএস/শাহনূরশাহীন/পাবলিকভয়েস/

মন্তব্য করুন