লঞ্চগুলোকে আইসোলেশন সেন্টার করা হবে: প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১০:২৭ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ৫, ২০২০

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধ এবং মোকাবিলা করার ক্ষেত্রে চিকিৎসা পদ্ধতি অনুসরণ করে যাত্রীবাহী লঞ্চগুলোকে ‘আইসোলেশন সেন্টারে’ পরিণত করার প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। এক্ষেত্রে লঞ্চ মালিকদের সম্মতি পাওয়া গেছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি গতকাল শনিবার ঢাকা সদরঘাটে নৌযানে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে লঞ্চ মালিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ ব্যাপারে লঞ্চ মালিকদের সঙ্গে কথা হয়েছে এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এর আগে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করা নিয়ে লঞ্চ মালিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা করেন তিনি।

খালিদ মাহমুদ বলেন, উপকূলীয় এলাকায় যেখানে করোনাভাইরাসের চিকিৎসা ব্যবস্থা পৌঁছেনি- লঞ্চগুলোকে আইসোলেশন সেন্টার করা হলে ওইসব এলাকার মানুষের জন্য উপকার হবে।

করোনা সংকট থেকে উত্তরণ না হওয়া পর্যন্ত নৌ-শ্রমিকদের পাশে থেকে সহযোগিতা করা হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী। এ সময় সদরঘাটে শ্রমিকদের মধ্যে ২০০ প্যাকেট খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন তিনি।

গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়।  শনিবারের তথ্য অনুযায়ী এ পর্যন্ত দেশে মোট ৭০ জনকে করোনা রোগী হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে ৩০ জন সুস্থ হয়েছেন। মারা গেছে ৮ জন।

এমন পরিস্থিতিতে আগামী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত গণপরিবন চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।  সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিষয়টি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন।

এমএম/পাবলিকভয়েস

মন্তব্য করুন