করোনার প্রতিষেধক আবিষ্কার মার্কিন গবেষকদের, অনুমোদনের অপেক্ষা

করোনাভাইরাস

প্রকাশিত: ৭:৫৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৩, ২০২০

মহামারী করোনাভাইরাসের চতুর্মুখী হতাশার খবরের মাঝে একটি ভালো খবর দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়ার পিটসবার্গ ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞানীরা। তারা দাবি করেছেন, করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক ভ্যাকসিন আবিষ্কার করতে পেরেছেন এবং সেটা ইঁদুরের শরীরে সফল প্রয়োগ করেছেন।

বিজ্ঞানীদের দাবি, ইঁদুরের শরীরে ভ্যাকসিনটি প্রয়োগের পর অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। এখন এটা যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্যবিভাগের অনুমোদন পেলে মানুষের ওপর প্রয়োগ এবং উৎপাদনে যেতে পারবে। বৃহস্পতিবার নিউইয়র্ক পোস্টের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

চিকিৎসাবিষয়ক বিখ্যাত ল্যানসেট জার্নালে করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কার নিয়ে পিটসবার্গের স্কুল অব মেডিসিনে এই গবেষণা প্রকাশ হয়েছে।

গবেষণায় বলা হয়, ভ্যাকসিনটি রোগের বিস্তারকে উল্লেখযোগ্যভাবে প্রভাবিত করতে দ্রুত কার্যকর হতে পারে। গবেষকরা নতুন এই ভ্যাকসিনের তারা নাম দিয়েছেন ‘পিটকোভ্যাক’। যার পূর্ণরূপ পিটসবার্গ করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন।

পিটসবার্গ স্কুল অব মেডিসিনের সহযোগী অধ্যাপক ডা. আন্দ্রে গামবট্টো বলেন, করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে আমাদের এই ভ্যাকসিন অ্যান্টিবডি তৈরি করতে সক্ষম। ইতিমধ্যে আমরা অনেক দূর এগিয়ে গেছি। এখন ভ্যাকসিনটি প্রস্তুত করতে অর্থের প্রয়োজন। কারণ করোনা মোকাবেলা করা না গেলে পরের অবস্থা ঠিক কী হবে, আমরা আসলে জানি না।

এই গবেষক বলেন, বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা ভ্যাকসিন আবিষ্কারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে সবার আগে এটি তৈরি করাটা জরুরি। আমাদের সেই ক্ষমতা এবং দক্ষতা রয়েছে।

ভ্যাকসিনটির অনুমোদনের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য এবং ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ) এর কাছে আবেদন জানিয়েছেন গবেষকেরা। তারা আশা করছেন, আগামী কয়েক মাসের মধ্যে মানুষের শরীরে তারা ভ্যাকসিনটির ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু করতে পারবেন।

প্রসঙ্গত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় এক হাজার ১৬৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাকারে এমন তথ্যই দেখিয়েছে।

বৈশ্বিক মহামারীটি শুরু হওয়ার পর কোনো দেশে একদিনে এটিই সর্বোচ্চ মৃত্যুর সংখ্যা। বুধবার রাত সাড়ে ৮টা থেকে পরদিন একই সময় পর্যন্ত এসব মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এর আগে গত ২৭ মার্চ ইতালিতে একদিনে সর্বোচ্চ ৯৬৯ জনের মৃত্যু হয়েছিলো।

/এসএস

মন্তব্য করুন