করোনা: ২৪ ঘন্টায় ইতালিতে ৬০২, ফ্রান্সে ১৮৬ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত: ৯:৫০ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৪, ২০২০

ইতালিতে মৃত্যুর মিছিল থামছেই না। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে ৬০২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে সেখানে মৃত্যু ৬ হাজার ছাড়িয়ে গেলে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা এ খবর দিয়েছে।

অপরদিকে ইউরোপে করোনায় মৃত্যুর মিছিলে ইতালি ও স্পেনের পরপরই এবার ফ্রান্সের নাম আসছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে ১৮৬ জন কোভিড-১৯ রোগী প্রাণ হারিয়েছেন। এ নিয়ে দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৮৬০ জনে।

একদিনে ইউরোপের উল্লিখিত তিন দেশেই করোনায় ১ হাজার ২২৩ জন প্রাণ হারালেন। ফ্রান্সে ১৮৬ ছাড়াও ইতালিতে মারা গেছেন ৬০২ জন। এছাড়া স্পেনে আরও ৪৩৫ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। জাতিসংঘ সতর্ক করে বলছে, ভাইরাসটি আরও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছেই।

ইতালিতে প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৬৩ হাজার ৯২৮ জন। গতকাল যা ছিল ৫৯ হাজার ১৩৮ জন। অর্থাৎ আক্রান্তের সংখ্যাও ৬০ হাজার ছাড়াল। চীনের পর আক্রান্তের দিক দিয়ে যা সর্বোচ্চ।

ফ্রান্সের সরকারি কর্তৃপক্ষ সোমবার নতুন করে আক্রান্ত ও মৃত্যুর হিসাব দিয়ে বলেছে, একদিনে দেশে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে ২৮ শতাংশ। এছাড়া গত তিনদিনের তুলনায় দেশটিতে বিপুল সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। অথচ দেশটি এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে লকডাউন। আজ সোমবার সংবাদ সম্মেলনে ফ্রান্সের স্বাস্থ্যমন্ত্রী অলিভার ভেরান বলেন, দেশটিতে এখন করোনায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ১৯ হাজার ৮৫৬ জন। যা গতকালের তুলনায় ২০ শতাংশ বেশি।

ইতালিতে করোনাভাইরাসে মানুষ মরছেই। গত শনিবার রেকর্ড সর্বোচ্চ ৭৯৩ জন দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারান। রোববার মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ৬৫১ জন। আজ সোমবার আরও ৬০২ জন মারা গেলেন।

তবে চীনার উহান থেকে প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়া ভাইরাসটিতে আজকের মৃত্যুর সংখ্যায় অনেকটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন স্থানীয়রা।একদিনে নতুন করে ৪ হাজার ৭৮৯ জনের আক্রান্তের ঘটনাও গতকালের তুলনায় কম।

দেশটিতে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে গুরুতর অসুস্থ রোগীর সংখ্যা ৩ হাজার ২০৪। তাদেরকে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া চিকিৎসায় সুস্থ হয়েছেন ৭হাজার ৪৩২ জন।

দেশটিতে করোনাভাইরাস সংক্রমিত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত ৫০ হাজার ৪১৮ রোগী এখন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। গতকাল যা ছিল ৪৬ হাজার ৬৩৮জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৬৩ হাজার ৯শ ২৭ জনে পৌঁছাল।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী জুসেপ্পে কোঁতে করোনা সংকট নিরসনে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া অব্যাহত রেখেছেন। প্রতিদিন জনগনকে সচেতন ও মনোবল বৃদ্ধি করতে ভাষণ দিচ্ছেন তিনি। পাশাপাশি গোটা ইতালিতে প্রশাসনের নজরদারি আরও বাড়ানো হয়েছে।

ইউরোপের অন্যান্য দেশের চেয়ে ইতালির চিকিৎসাখাতে সবচেয়ে বেশি বাজেট বরাদ্দ। দেশটিতে বিনামূলে করোনার পরীক্ষাসহ সকল সেবা প্রদান করা হচ্ছে। এছড়া স্বাস্থ্যসেবা এবং জরুরি স্বাস্থ্যসেবার খরচও সরকার বহন করে।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘কেউ নিজেকে অসহায় মনে করবেন না, রাষ্ট্র সবার পাশে আছে। আজ আমরা পরস্পর দুরত্ব বজায় রাখবো, কাল আবার কাছে জড়িয়ে নেব, আজ আমরা থামবো, আগামীকাল অনেক দ্রুত এগুনোর জন্য। ঐক্যবদ্ধভাবে আমরা সফল হবোই।’

মন্তব্য করুন