মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম : নেতৃত্বগুনে অনন্য

প্রকাশিত: ২:৪৪ অপরাহ্ণ, মার্চ ৭, ২০২০

ইসলামী চেতনার নেতৃত্বদান কেমন হতে হবে বা কেমন করা উচিৎ বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মকে কিভাবে নেতৃত্ব দিতে হবে তা শিখতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের বর্তমান সুযোগ্য সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী ফয়জুল করীম পীর সাহেব চরমোনাইকে দল, মত, নির্বিশেষে বিনা শর্তে অনূসরণ করা আবশ্যক বলে মনে করি।

মুফতী ফয়জুল করীম নিজেকে শুধু ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের জন্যেই সীমাবদ্ধ রাখেননি বরং তিনি হক্বের নিশানা যেখানেই আছে সেখানেই নিজেকে মিশিয়ে নেন নির্দ্বিধায়। যার ফলে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের রাজনীতিতে সম্পৃক্ততা নেই এমন লাখো মানুষের চোখে তিনি ইসলামী চেতনাময় আদর্শ প্রতিষ্ঠার স্বপ্নপুরুষও বটে।

দেখুন, বুঝুন এবং লক্ষ্য করুন যে, তিনি যখন সমসাময়িক দুর্দশা, অপশোষন, অপশাসনের বিরুদ্ধে হক্বের পক্ষে আওয়াজ তুলে যখন কথা বলেন তখন তিনি ভুলে যান যে তিনি কোন দলের বা সংগঠনের। একটু বিবেক ও জ্ঞান খাটিয়ে যাচাই করে দেখুন তিনি আপনারই স্বপ্ন, আপনারই ইচ্ছা, আপনারই ভবিষ্যত পরিকল্পনার মানচিত্রটা এঁকে দিচ্ছেন।

উনার সবচেয়ে বড় গুন হলো, তিনি উপস্থিত বক্তব্য যেকোনো বিষয়ে পূর্ব অনুশীলন ছাড়াই যথাযথভাবে অবলীলায় উপস্থাপন করার ক্ষেত্রে সেরা একজন ব্যাক্তিত্ব। এক্ষেত্রে তিনি অন্যান্যদের চেয়েও অনেক অনেক এগিয়ে এবং উনার যে কোন বক্তব্য অসাধারণ চৌকস নৈপূন্যতা বহন করে। রাজপথে তার আওয়াজকে সিংহের গর্জনের মতো প্রকম্পিত করে তোলে। যে বক্তব্যে উদ্বেলিত হয় তরুণ সমাজ।

শারিরিক ভঙ্গিমায় উনি যেনো মনে হয় সবসময় জিহাদের প্রস্তুতি নিয়েই বের হন ঘর থেকে। সাধাসিধে চলাফেরা, মিশুক বাক্যালাপ, আগ বাড়িয়ে খোঁজ খবর নেয়াটা উনার একটা দারুণ নেশা। অনেক ইসলামী নেতাকে মানুষ স্বপ্নে দেখতেও টিকিট কাটার মিশন সম্পন্ন করতে হয়। উনি সেদিক থেকে ব্যতিক্রম এটা দাবীদদি করে বলতে পারি।

উনি সত্যিকারের উদার মনের মানুষ। দল,মত,সংগঠন নির্বিশেষে উনার কাছে সহযোগিতা প্রত্যাশায় স্বপ্ন নয় বাস্তবেই সম্পৃক্ততা রাখা সহজ। উনার কাছের মানুষগুলোকে ধমক দেন এমনভাবে মনে হয় যেনো বড় ভাই শাসন করতেছে।

রাজনৈতিক মঞ্চে,ওয়াজের মঞ্চ বা পথ মঞ্চের সময় উনার কথা, শারিরিক ভঙ্গিমা কিংবা চাহনী এবং সাধারন চলাফেরায় তিনি পুরোটাইই আলাদা বলা যায়। কাউকে প্রতিপক্ষ তিনি ভাবেন না যতক্ষন সে ইসলাম ও হক্বের উপর থাকেন তবে ইসলাম ও হক্বের বাহিরেই যাকে দেখেন তার বিরুদ্ধে ইসলামীক হুকুমমতো ঝাঁপিয়ে পড়তে পিছুপা হননা।

আল্লাহপাক উনাকে কবুল করেন বাংলার জমিনে হক্বকে প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে নিবেদিত হবার জন্যে,আমীন।

লেখক : অ্যাক্টিভিস্ট, ক্রিটিক

মন্তব্য করুন