দিল্লিতে মুসলিমদের ওপর সহিংসতা নিয়ে বিএনপির উদ্বেগ

প্রকাশিত: ৬:১৯ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০

ভারতের দিল্লিতে মুসলিমদের ওপর চলমান সহিংসতা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)।

বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম সূত্রে অবহিত হয়ে বাংলাদেশের নিকটতম প্রতিবেশী দেশ ভারতের রাজধানী দিল্লির পরিস্থিতিতে উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা জানিয়ে বিএনপি বিবৃতি প্রদান করেছে।

বিবৃতিতে বিএনপি জানায়, গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ মোতাবেক জানা গেছে সম্প্রতি ভারত সরকার কর্তৃক পাশকৃত বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ)-এর পক্ষ ও বিপক্ষ গোষ্ঠীর মধ্যে যে বিরোধ তৈরি হয়েছিল তা ইতিমধ্যেই সহিংসতায় রূপ নিয়েছে, সহিংসতায় নিহত ও আহতের সংখ্যা আশঙ্কাজনকভাবে বাড়ছে। বিএনপি গভীর দুঃখ ও উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছে যে, নিহত ও আহতদের মধ্যে মুসলমান ও হিন্দু উভয় ধর্মীয় সম্প্রদায়ের ভারতীয় আছেন।

বিবৃতিতে বিএনপি স্মরণ করিয়ে দিয়েছে, বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) পাশের ভয়াবহ প্রতিক্রিয়া, এই উপমহাদেশ তথা এ অঞ্চলের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জন্য হুমকি হয়ে উঠবে। এই মর্মে ইতিপূর্বেই সেই উদ্বেগ জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করা হয়েছিল।

যে বিবৃতিতে হুঁশিয়ার করে বলা হয়েছিল, বহুত্ববাদের আদর্শ থেকে যেকোনো বিচ্যুতি সকল ধর্মের মানুষের সমান নিরাপত্তা নিশ্চিতের পথে একটি অনিবার্য বাধা। চলমান দিল্লি’র সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা তা আবার সুস্পষ্ট উদাহরণ হিসেবে প্রমাণ করলো।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, এ অঞ্চলের শান্তি ও সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ বরাবরই উদ্যমী। ভারতের প্রতিবেশী দেশের নাগরিকদের প্রতিনিধিত্বশীল দল হিসেবে বিএনপি সবসময়ই ভারত রাষ্ট্র ও জনগণের শান্তি, স্থিতিশীলতা ও স্বাভাবিক পরিবেশ কামনা করে।

বিএনপি বিশ্বাস করে, ভারতের বর্তমান নির্বাচিত সরকার তার দেশের সংবিধানের অন্তর্নিহিত চেতনা অনুযায়ী ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে সকল নাগরিকের মৌলিক অধিকার ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করার মাধ্যমেই চলমান সংকটের সমাধান করবেন।

বৃহৎ দেশ হিসেবে এ অঞ্চলের শান্তি, সম্প্রীতি, উন্নয়ন, নিরাপত্তা, স্থিতিশীলতা ও স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে ভারত সরকার যথাযথ ভূমিকা গ্রহণ করবে বলে বিএনপি প্রত্যাশা করে।

আই.এ/

মন্তব্য করুন