একদিনের ব্যবধানে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দ্বিগুণ

প্রকাশিত: ৬:৩০ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২০

করোনাভাইরাসে (কভিড-১৩) আক্রান্তের সংখ্যা একদিনের ব্যবধানে দ্বিগুণ হয়েছে এশিয়ার দেশ দক্ষিণ কোরিয়ায়। দেশটির স্থানীয় সময় শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সরকারি কর্মকর্তারা এ তথ্য জানিয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার সরকারি কর্মকর্তারা জানায়, শুক্রবার পর্যন্ত আক্রান্তের পরিমাণ ছিল ২২৯ জন। কিন্তু এক দিনের ব্যবধানে শনিবার তা ৪৩৩ দাঁড়িয়েছে। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশটিতে মারা গেছে দুইজন। দেশটির ভাইস স্বাস্থ্যমন্ত্রী কিম গাং-লিপ বলেন, করোনার প্রাদুর্ভাব মারাত্মক ধাপে প্রবেশ করেছে।

আক্রান্তের বেশিরভাগই দেশটির দক্ষিণ-পূর্বের দায়েগু শহরের নিকটের একটি হাসপাতাল এবং একটি ধর্মীয় গোষ্ঠীর সঙ্গে জড়িত বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় দায়েগু এবং নিকটবর্তী চেয়োংদো শহরের হাসপাতালগুলোকে স্পেশাল কেয়ার জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া দায়েগু শহরের রাস্তাঘাট জনশূন্য হয়ে পড়েছে।

শনিবার চীনে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা কমার পরেই দক্ষিণ কোরিয়া থেকে এ ঘোষণা আসলো। দক্ষিণ কোরিয়ার চিকিৎসা কর্মীরা শনিবার প্রথমে নতুন ১৪২ জন রোগীর সংক্রমণের কথা জানায়। কিন্তু ঘণ্টাখানেক পরে তারা আরও ৮৭ জনের আক্রান্তের কথা নিশ্চিত করে।

এক বিবৃতিতে কোরিয়া সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিবেনশন (কেসিডিসি) জানায়, নতুন আক্রান্ত ২২৯ জনের মধ্যে ৯৫ জন চেয়োংদো শহরের দায়েনাম হাসপাতালের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। হাসপাতালটিতে এখন ১১৪ জন আক্রান্ত রয়েছে। এর মধ্যে নয় জন হাসপাতালের কর্মী ও ১০২ রোগী। কেসিডিসি আরও জানায়, তারা নয় হাজার ৩৩৬ জনকে নিজস্ব কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। যার মধ্যে ৫০০ জনের পরীক্ষা করা হয়েছে।

বর্তমানে আক্রান্তের দিক থেকে বিশ্বজুড়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। আর তার ওপরেই রয়েছে এশিয়ার আরেক দেশ জাপান। নতুন আক্রান্ত নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রস আধানম গেব্রেইয়েসাস বলেন, চীনের বাইরে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা কম। কিন্তু তারা যেভাবে আক্রান্ত হচ্ছে তা উদ্বেগজনক। চীনের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা নেই এমন অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে পড়ছে। এছাড়া করোনার প্রাদুর্ভাব কমিয়ে আনার রাস্তা সংকীর্ণ হয়ে আসছে বলেও জানান তিনি।

আই.এ/

মন্তব্য করুন