প্রবাসীদের অধিকার সুরক্ষা ও নিরাপত্তায় কাজ করছে সরকার

প্রকাশিত: ১০:১০ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ২৮, ২০২০

সংসদ সদস্য মো. ইসরাফিল আলম বলেছেন, প্রবাসে বাংলাদেশি অভিবাসীদের অধিকার সুরক্ষা ও নিরাপত্তা নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে বাংলাদেশ সরকার।

সোমবার (২৭ জানুয়ারি) নিউইয়র্কে জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে অভিবাসন বিষয়ক বাংলাদেশ সংসদীয় ককাস এবং অভিবাসন সংক্রান্ত এনজিও কমিটি ও সিভিল সোসাইটির সদস্যদের এক যৌথ পরামর্শমূলক সভায় এ কথা বলেন তিনি।

মো. ইসরাফিল আলম বলেন, নিরাপদ, নিয়মিত ও নিয়মতান্ত্রিক অভিবাসন এগিয়ে নিতে লাগাতার কাজ করে যাবে বাংলাদেশ।

অভিবাসন বিষয়ক বাংলাদেশ সংসদীয় ককাসের সভাপতি মো. ইসরাফিল আলমের নেতৃত্বে বাংলাদেশ সংসদীয় দল ইকুয়েডরের রাজধানী কিটোতে অনুষ্ঠিত গ্লোবাল ফোরাম অন মাইগ্রেশন অ্যান্ড ডেভোলপমেন্টের (জিএফএমডি) ১২তম সম্মেলনে অংশগ্রহণ শেষে নিউইয়র্কে এ যৌথ পরামর্শমূলক সভায় যোগ দেন।

অভিবাসনকে বাংলাদেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি উন্নয়নমূলক ইস্যু হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নে প্রবাসী বাংলাদেশিদের পাঠানো রেমিটেন্স তাৎপর্যপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে।

এছাড়া অভিবাসনকে ত্বরান্বিত করতে এবং অভিবাসন প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন আইন প্রণয়ন করেছে। যা বৈশ্বিকভাবে নিরাপদ, নিয়মিত ও নিয়মতান্ত্রিক অভিবাসনকে এগিয়ে নিতে বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতিরই বহিঃপ্রকাশ।

অভিবাসনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নানা পক্ষের মধ্যে আলোচনা ও সংলাপের জন্য জিএফএমডি একটি কার্যকর প্লাটফর্ম। তিনি এটিকে আরো ব্যাপকভিত্তিক করার ওপর জোর দেন।

জিএফএমডির সম্মেলনে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল ‘মানুষের জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুতি’ এবং ‘অনিবন্ধিত অভিবাসীদের ভোগান্তি’ বিষয় দু’টিকে বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গে উল্লেখ করেছে। এ বছর জুলাই মাসে জাতিসংঘ সদর দফতরে অনুষ্ঠেয় উচ্চ পর্যায়ের রাজনৈতিক ফোরামের (এইচএলপিএফ) আলোচনায় সরকার, সংসদীয় ককাস ও সিভিল সোসাইটির অভিবাসন সংশ্লিষ্ট ইস্যুগুলো তুলে ধরা উচিত বলে মতামত দেন ইসরাফিল আলম।

জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা বলেন, অভিবাসনকে বাংলাদেশ যে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে, তার উদাহরণ এ সংসদীয় ককাস গঠন। অভিবাসনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় জিএফএমডির অব্যাহত ভূমিকা প্রশংসার দাবি রাখে।

এটি সরকারি নীতি নির্ধারক ও সিভিল সোসাইটির মধ্যে সংযোগ তৈরির একটি প্লাটফর্ম। অভিবাসীদের অধিকার সুরক্ষায় গৃহীত যুগান্তকারী দলিল ‘গ্লোবাল কম্প্যাক্ট অন মাইগ্রেশনে’র বাস্তবায়ন এগিয়ে নিতে জিএফএমডি কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে।

সভাটিতে অন্যান্যের মধ্যে বাংলাদেশ সংসদীয় ককাসের সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য মাহজাবিন খালেদ, বাংলাদেশি অভিবাসীদের অধিকার রক্ষা কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান সৈয়দ সাইফুল হক, ব্রিটিশ কাউন্সিলের ‘দায়বদ্ধতা ব্যবস্থাপনার জন্য জ্ঞান উন্নয়ন প্রকল্পের (প্রকাশ)’ দলনেতা জেরি ফক্স, এর উপদেষ্টা শিরিন লিরা, অভিবাসন বিষয়ক এনজিও কমিটির সদস্য ইভা রিচার এবং মারিয়া পিয়া মিগন্যাটি অংশ নেন।

অভিবাসনের বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ এবং চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বিদ্যমান বিভিন্ন প্রক্রিয়াগুলো কীভাবে কাজে লাগানো যায়, সে বিষয়ে এ সভায় আলোচনা হয়। এছাড়া নারী অভিবাসীদের বিভিন্ন ঝুঁকি, অভিবাসীদের নিগ্রহ ও নির্যাতন এবং তাদের সংকটগুলো আলোচনায় বিশেষ গুরুত্ব পায়।

আই.এ/

মন্তব্য করুন