সৎ সাহস থাকলে ঢাকা সিটিতে সুষ্ঠু নির্বাচন দিয়ে দেখান : মুফতী রেজাউল করীম

প্রকাশিত: ৬:০৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৪, ২০২০

ঢাকা সিটি নির্বাচন বর্তমান ভোটারবিহীন নির্বাচিত সরকারের ইমেজ রক্ষার চ্যালেঞ্জ দাবি করে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ রেজাউল করীম বলেন দুর্নীতি-দুঃশাসন ও ভোটাধিকার হরণ করে সরকারের ইমেজ তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। সৎ সাহস থাকলে আসন্ন ঢাকা সিটি করপোরেশনে ফেয়ার নির্বাচন দিয়ে এই নির্বাচনকে তাদের ইমেজ উদ্ধারের চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহন করতে পারে।

আজ ২৪ শে জানুয়ারি ইসলামী যুব আন্দোলন ঢাকা মহানগর দক্ষিণের উদ্যোগে রাজধানীর বিএমএ মিলনায়তনে আয়োজিত ওয়ার্ড প্রতিনিধি সম্মেলনে নগর সভাপতি মুফতী মানসুর আহমদ সাকীর সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি শফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ রেজাউল করীম এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, সরকার এখন জনগণকে ভয় পায়, তাই সুষ্ঠু নির্বাচন দিতে চায় না। দেশপ্রেমী জনগণ অচিরেই ব্যালট যুদ্ধের মাধ্যমে এই জনবিচ্ছিন্ন সরকারের পতন ঘটাবে ইনশাল্লাহ। আবারো যদি নির্বাচনের নামে প্রহসনের অপচেষ্টা করা হয় তাহলে সরকারকে তার কঠোর জবাব দেওয়ারও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সহকারী মহাসচিব অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান। তিনি বলেন, নির্বাচনে হাতপাখার যে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে, গণবিচ্ছিন্ন সরকার এবং অপপ্রচারকারীরা তাতে জমের ভয় পাচ্ছে। এবারের নির্বাচনে হাতপাখার বিপ্লব সাধিত হবে ইনশাআল্লাহ।

প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন ইসলামী যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি কে এম আতিকুর রহমান। তিনি বলেন, ইসলামী যুব আন্দোলন এখন সারাদেশে শক্ত প্লাটফর্ম তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে। এই জনশক্তিকে রুখে দেয়ার শক্তি কারোর নাই। তিনি আরও বলেন, আসন্ন নির্বাচনে যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য ইসলামী যুব আন্দোলন এর সদস্যদেরকে প্রস্তুত থাকতে হবে। হুমকি-ধমকি এবং রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে হাতপাখার জয় ছিনিয়ে আনতে হবে। এজন্য তিনি ইসলামী যুব আন্দোলনের সকল দায়িত্বশীল কে সজাগ ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সমর্থিত ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে হাতপাখার মেয়র পদপ্রার্থী আলহাজ্ব আব্দুর রহমান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা দক্ষিণের সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, যুব নেতা ইঞ্জিনিয়ার আতিকুর রহমান মুজাহিদ, মুফতি শেখ মোহাম্মদ নুরুন্নবী, মাওলানা ইউনুস তালুকদার, এস এম আজিজুল হক, অধ্যাপক ফজলুল হক মৃধা, মুফতি মোহাম্মদ তালহা। বক্তারা তাদের বক্তৃতায় দেশে আইন শৃঙ্খলার অবনতি, দলীয়করণ, দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতি, ধর্ষণ ও যুবসমাজের চরিত্র নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নগর যুবনেতা জানে আলম সোহেল, কে এম শামিম আহমদ, মাওলানা নাজিম উদ্দিন, মুফতী এইচ এম আবু বকর সিদ্দীক, জুবায়ের আহমদ জুবেল, মাওলানা আল আমিন এহসান, মাও। রশিদ, এড.মিজানুর রহমান প্রমুখ।

মন্তব্য করুন