সাদপন্থীদের ইজতেমার সমাপ্তি আজ

প্রকাশিত: ৮:৪৮ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৯, ২০২০

আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে আজ শেষ হবে সাদপন্থীদের ইজতেমা। বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টার মধ্যে আখেরি মোনাজাত হতে পারে। মোনাজাত পরিচালনা করতে পারেন ভারতের মাওলানা জামশেদ।

মোনাজাত উপলক্ষে টঙ্গী ও আশপাশের এলাকায় যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করছে পুলিশ। গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো. আনোয়ার হোসেন জানান, শনিবার মধ্যরাত থেকে রবিবার বিকাল পর্যন্ত ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চান্দনা চৌরাস্তা থেকে টঙ্গী, টঙ্গী-কালীগঞ্জ সড়কের মিরেরবাজার থেকে স্টেশন রোড, কামারপাড়া থেকে আশুলিয়া এবং ঢাকা ময়মনসিংহ সড়কে বিমানবন্দর থেকে টঙ্গী ব্রিজ পর্যন্ত যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে।

ভোর রাত ৪টা থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের গাজীপুর চৌরাস্তায় এবং ঢাকার মহাখালী থেকে গাড়ি বন্ধ করে দেওয়া হবে। উত্তরবঙ্গ থেকে আসা গাড়ি কোনাবাড়ি থেকে বন্ধ করে দেওয়া হবে। এছাড়া টঙ্গীমুখী সব শাখা সড়কগুলো বন্ধ থাকবে।

তিনি বলেন, ইজতেমায় যোগ দেওয়া বৃদ্ধ মুসল্লিদের যাতায়াতের জন্য শাটল বাসের ব্যবস্থা থাকবে। ইজতেমাস্থল থেকে চৌরাস্তা ও মহাখালীমুখী ৩০টি বাস চলাচল করবে।

ময়দানে আরও চার মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার রাত থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত বার্ধক্যজনিত কারণ ও হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তাদের মৃত্যু হয়।

সা’দপন্থীদের ইজতেমায় মাদরাসা ছাত্র দেখলেই হয়রানীর অভিযোগ:
টঙ্গীর তুরাগ তীরে চলছে মাওলানা সা’দ কান্ধলভী অনুসারীদের বিশ্ব ইজতেমা। লোক সমাগম কম হলেও ইজতেমা চলছে নিয়মতান্ত্রীকভাবেই। প্রশাসনের কঠোর অবস্থান এবং সতর্কতার কারণে ইজতেমা চলছে ধারাবাহিকভাবেই। কিন্তু ইজতেমার মাঠে মাদরাসা ছাত্রদের হয়রানী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে এবং এ ধরণের একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় এসেছে।

মাঠের একটি সূত্র থেকে জানা যায়, কিছু অতি-উৎসাহী এবং আলেম ওলামাদের প্রতি বিরাগভাজন হয়ে থাকা তাবলীগের সাথীরাই মূলত মাদরাসা ছাত্রদের হয়রানী করছে। তাদের দেখলেই বিভিন্নভাবে তাদের সাথে খারাপ আচরণ করছেন। মাঠে হয়রানীর শিকার হওয়া দুইজন ছাত্রের সাথে কথা বলে জানা যায় তারা ইজতেমার মাঠ দেখার জন্য গিয়েছিলেন এবং সেখানের কয়েকজন তাদেরকে ধরে ‘জঙ্গী’, হেফাজতী, ইত্যাদি বলে হয়রানী করেছে। এবং কয়েকজন তাদেরকে মারধরেরও চেষ্টা করেছে।

তাদের সাথে কথা বলার পর এ সম্পর্কীয় অন্য একটি ভিডিও পাওয়া যায় ফেসবুকে। Md Yeasin নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে আপলোড করা ১ মিনিট ৪৬ সেকেন্ড দৈর্ঘের সেই ভিডিওতে দেখা গেছে, ইজতেমার মাঠে স্টেইজের কাছাকাছি জায়গায় দু‘জন মাদরাসা ছাত্রকে হয়রানী করা হচ্ছে এবং সেখানে তাদেরকে ধাক্কা দেওয়াসহ শারিরীকভাবে হেনস্তা করা হচ্ছে। এমনকি সেখানে এই ছাত্র দুজনকে ‘হেফাজতী জঙ্গী’ আখ্যা দিচ্ছে এবং কেউ তারা ইজতেমা বানচাল করতে এসেছে এমন দাবিও তুলছে। তবে কয়েকজনকে দেখা গেছে তাদেরকে রক্ষা করতে। তারা তাদেরকে রক্ষা করে নিয়ে গেছে। তবে শেষ পর্যন্ত তাদের পরিণাম কী হয়েছে তা এখনও জানা যায়নি।

কেবল এই দুজনই না। সা’দপন্থীদের এই ইজতেমায় মাঠের আরও বিভিন্ন স্থানে মাদরাসা ছাত্রদের হয়রানী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে এবং সে বিষয়ে ইজতেমা পরিচালনা কমিটি তেমন কোন ব্যাবস্থা নেয়নি। ইজতেমার মাঠের জিম্মাদার রফিকুল ইসলামের সাথে এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি এ বিষয়ে এখনও কিছু জানি না। তবে খোজ নেবো। কেউ এমন কিছু করলে আমরা অবশ্যই ব্যাবস্থা নেবো।

প্রসঙ্গত : ওলামায়ে কেরামের তত্বাবধানে শুরায়ী নেজামের ব্যাবস্থাপনায় স্মরণকালের সর্ববৃহৎ বিশ্ব ইজতেমা আয়োজন হয়েছে ৯ তারিখ থেকে ১২ তারিখ পর্যন্ত। ১০, ১১, ১২ এই তিনদিনের আয়োজনের পর সোমবার তারা মাঠ ছেড়ে চলে যান এবং মাঠ বুঝিয়ে দেওয়া হয় সা’দ কান্ধলভী অনুসারীদের। মাওলানা সা’দ অনুসারীরা তাদের ইজতেমা শুরু করেন ১৭ তারিখ শুক্রবার থেকে। এরপর রোববার আখেরী মুনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে এই পর্ব। তবে প্রথম পর্বে ওলামায়ে কেরামের তত্বাবধানে হওয়া ইজতেমায় কোন অপ্রিতিকর ঘটনার খবর না পাওয়া গেলেও সা’দপন্থীদের ইজতেমায় এমন অপ্রিতিকর কয়েকটি পাওয়া গেল।

আই.এ/

মন্তব্য করুন