বন্ধুত্বের মাধ্যমে কূটনীতি পরিচালনা করতে রাষ্ট্রদূতদের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত: ১১:৩৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০২০

কারো সঙ্গে বৈরিতা না করে বন্ধুত্বের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক কূটনীতি পরিচালনার জন্য মধ্যপ্রাচ্যে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতদের নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আবুধাবিতে রাষ্ট্রদূত সম্মেলনে তিনি এ নির্দেশনা দেন।

এছাড়াও মধ্যপ্রাচ্যের ৯ দেশে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতদের নিয়ে আরব আমিরাতের আবুধাবিতে রাষ্ট্রদূত সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী প্রবাসীদের প্রতি দায়িত্ব পালনে সকলকে পেশাদারিত্বের সাথে কাজ করার আহবান জানান।

তিনদিনের সংযুক্ত আরব আমিরাত সফরের দ্বিতীয় দিন রাতে প্রধানমন্ত্রীর আবাসস্থল হোটেল সাংগ্রিলাতে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন নতুন দায়িত্বপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।

এসময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শহিরিয়ার আলমও উপস্থিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী একে একে কুয়েত, ইরাক, ইরান, বাহরাইন, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার ও লেবাননের রাষ্ট্রদূতের ব্কতব্য শুনেন।

২০১৭ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত রাষ্ট্রদূত সম্মেলনের পর এই দফায় আবার মধ্যপ্রাচ্যের কুটনীতিকরা প্রধানমন্ত্রীর সাথে বৈঠক করলেন।

এর আগে সোমবার সকালে ‘আবুধাবি সাসটেইনেবিলিটি উইক’ ও ‘জায়েদ সাসটেইনেবিলিটি প্রাইজ’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন প্রধনামন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় তিনি কিরিবাতির ইউতান তারাওয়া ইয়েতা জুনিয়র সেকেন্ডারি স্কুলের প্রতিনিধির হাতে পুরষ্কার তুলে দেন। স্কুলটি গ্লোবাল হাই স্কুল ক্যাটাগরিতে মর্যাদাপূর্ণ এই পুরষ্কার পেয়েছে।

এ বছর পাঁচটি ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন দেশের ১০টি সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানকে জায়েদ সাসটেইনেবল প্রাইজ প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ বিন সুলতান আল-নাহিয়ান ও শেখ হাসিনা ছাড়াও আরো সাতটি দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করেন।

স্থানীয় সময় সকালে বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী প্রদর্শনী কেন্দ্রে পৌঁছালে আবুধাবির যুবরাজ শেখ মোহাম্মদ বিন জায়ৈদ বিন সুলতান আল-নাহিয়ান তাঁকে স্বাগত জানান।

/এসএস

মন্তব্য করুন