হত্যার পর লাশ টুকরো টুকরো করে মহাসড়কে ছড়িয়ে রাখে দুর্বৃত্তরা

প্রকাশিত: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০২০

হত্যার পর লাশ টুকরো টুকরো করে মহাসড়কে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রাখে হত্যাকারীরা। লাশের খন্ডিত টুকরোগুলো বিভিন্ন যানবাহনের চাকায় পিষ্ট হয়ে রক্তে রঙিণ হয় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক। এমন নির্মম হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লার চান্দিনায়। নিহতের নাম মো. নাছির উদ্দিন (২৬)।

আজ (১৩ জানুয়ারি) সোমবার সকালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চান্দিনার নাওতলা এলাকা থেকে নিহত যুবকের ছিন্নভিন্ন মরদেহের কিছু অংশ উদ্ধার করে চান্দিনা থানা পুলিশ।

নিহত নাছির উদ্দিন চান্দিনা উপজেলার মাধাইয়া ইউনিয়নের নাওতলা গ্রামের নৈশপ্রহরী রবিউল্লাহর ছেলে। তিনি নাওতলা মাদরাসা সংলগ্ন একটি চা দোকান চালানোর পাশাপাশি বাবার অবর্তমানে নৈশ প্রহরীর কাজ করতেন।

স্থানীয়রা জানান, নাওতলা এলাকায় মহাসড়কের পাশে বাচ্চু চেয়ারম্যান মার্কেটে নৈশপ্রহরীর দায়িত্ব পালন করেন নিহতের বাবা রবিউল্লাহ। সেখানে একটি চা দোকান ছিল নাছির উদ্দিনের। রোববার রাতে বাবার অসুস্থতার কারণে তার পরিবর্তে নৈশপ্রহরীর দায়িত্ব পালন করেন নাছির।

রবিউল্লাহ জানান, ‘সোমবার ভোরে দোকানে এসে দোকান খোলা থাকলেও সেখানে ছেলেকে পাইনি। দোকানের ভেতর রক্তের দাগ দেখে আামি চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। পরে স্থানীয় লোকজন মহাসড়ক থেকে নাছিরের দেহের ছিন্নভিন্ন অংশ উদ্ধার করে।’

খবর পেয়ে চান্দিনা থানা পুলিশ ও ইলিয়টগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ও মাধাইয়া ইউপি চেয়ারম্যান অহিদ উল্লাহ ঘটনাস্থলে আসেন।

চান্দিনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবুল ফয়সল জানান, নাছিরকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করার পর লাশ কয়েক টুকরো করে মহাসড়কে ফেলে দেয় দুর্বৃত্তরা। গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে ছিন্নবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে ছিল তার মরদেহ।

মহাসড়কের দেড় কিলোমিটার এলাকা জুড়ে নিহতের মরদেহের অংশ পাওয়া যায়। সেগুলো উদ্ধার করা হয়েছে। দোকানের মধ্যে রক্তের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে জানান ওসি আবুল ফয়সল।

/এসএস

মন্তব্য করুন