শিশুদের সন্ত্রাসবাদ ও মাদক থেকে দূরে রাখতে ক্রীড়া অপরিহার্য

প্রকাশিত: ৬:০৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০১৯

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে বুধবার কিশোর, তরুণ ও যুবকদের লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধূলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডের প্রয়োজনীয়তার উপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, ‘কিশোর, তরুণ ও যুবকদের দেশের যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলাই আমাদের লক্ষ্য। আর এ জন্য নিজেদের যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি তাদের খেলাধূলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে অংশ নিতে হবে।’

গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাসেল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ টেনিস টুর্নামেন্ট, ২০১৯ এর উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শিশুদের সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ ও মাদক থেকে দূরে রাখতে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতির গুরুত্ব অপরিহার্য। সুস্বাস্থ্য ও সুন্দর মনমানসিকতা গড়ে তুলতে আমরা চাই লেখাপড়ার পাশাপাশি আমাদের শিশুরা বিভিন্ন ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায়ও অংশ নিক। ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড শিশুদের মাঝে নিয়মানুবর্তিতা, দায়িত্ববোধ ও দেশপ্রেম জাগ্রত করে, যা তাদেরকে যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, খেলোয়াড়রা যেন যথাযথভাবে তাদের প্রতিভার বিকাশ ঘটাতে পারে সে লক্ষে সরকার প্রতিটি উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণ করছে। নিজেকে একজন ক্রীড়ানুরাগী পরিবারের সদস্য হিসেবে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, তার দাদা শেখ লুৎফুর রহমান, বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও দুই ভাই শেখ জামাল ও শেখ কামাল ফুটবল খেলোয়াড় ছিলেন। শেখ জামাল ও শেখ কামালের স্ত্রীরাও খেলাধূলার সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন।

এ সময় প্রধামন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম উপস্থিত ছিলেন। প্রধামন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আখতার হোসেন খেলাধূলায় দেশের সার্বিক উন্নয়ন তুলে ধরেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান ও প্রধামন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম। অনুষ্ঠানে শেখ রাসেল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ টেনিস টুর্নামেন্টের একটি সংক্ষিপ্ত প্রেজেন্টেশনও প্রদর্শন করা হয়।

এ সময় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বিএফএফ) সভাপতি কাজী সালাহউদ্দিন এবং বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনারও উপস্থিত ছিলেন। স্বাগতিক বাংলাদেশ, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইতালি, ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, অস্ট্রেলিয়া ও নেপালসহ ১৯টি দেশ এই টুর্নামেন্টে অংশ নিচ্ছে।

আই.এ/

মন্তব্য করুন