প্রবাসীদের দুঃখ ; এখনকার বাস্তবতায় সত্য বললে বেইজ্জত হবেন : ব্যারিস্টার সুমন

প্রকাশিত: ১১:২৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১২, ২০১৯

বর্তমান সময়ের বাস্তবতা এমন পর্যায়ে এসে পৌঁছেছে যে, সত্য বললে বা ভালো বললেই বেইজ্জতি হতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। প্রবাসীদের দুঃখ দুর্দশা নিয়ে আরটিভির ‘কেমন বাংলাদেশ চাই’ শীর্ষক টক-শোতে আলোচনা করতে গিয়ে প্রবাসীদের জন্য সমস্যা কোথায় কোথায় সে বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে তিনি এমন মন্তব্য করছেন।

তবে এমন বাস্তবতায়ও বাংলাদেশে যে কোন বিষয়ে একমাত্র ভরসার জায়গা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেই মনে করেন তিনি। তিনি দাবি করে বলেন, আমাদের দেশে এখন আমরা কোন বিষয়েই ‘সেলফ স্টার্ট’ নেই না। উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, আমাদের দেশে নুসরাত মারা গেলো সেখানেও প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ লেগেছে। আবরার মারা গেলো সেখানেও প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ লেগেছে অথচ এদেশে পুলিশ আছে, র‍্যাব আছে, আইন শৃঙ্খলা বাহিনী আছে কিন্তু এই কাজগুলোর বিষয়েও মূভ করা লাগে প্রধানমন্ত্রীর।

প্রবাসীরা দেশের রেমিটেন্স পাঠাচ্ছে, তাদের দ্বারা দেশ উন্নত হচ্ছে কিন্তু তারা তাদের যোগ্য সম্মান পাচ্ছে না কেন? এ প্রশ্নের জবাবে ব্যারিস্টার সুমন বলেন, প্রবাসীদের বিষয়টা হয়ে দাড়িয়েছে “তারা বেঁচে থাকলে রেমিটেন্স যোদ্ধা, মরে গেলে বোঝা”। তিনি প্রবাসীরা বিদেশে মারা গেলে তাদের ভোগান্তির বিষয়টি তুলে ধরে বলেন, প্রবাসীরা সবচেয়ে বেশি কষ্টে থাকে তাদের লাশ ফেরত আনতে গিয়ে। বেশিরভাগ সময়ই দেখা যায়, তারা চাঁদা তুলে তাদের লাশ আনতে হয়।

এছাড়াও নারী শ্রমিকদের ব্যাপারে তিনি আক্ষেপ করে বলেন, নারী শ্রমিকরা বাংলাদেশ থেকে গৃহকর্মী হিসেবে বিমানে উঠলেও প্রবাসে গেলে যেন তাদেরকে বিদেশীরা যৌণকর্মী হিসেবে গন্য করে এবং তাদের উপর সব ধরণের নির্যাতন চালানো বৈধ মনে করেন। এসবের কারণ বলতে গিয়ে তিনি বলেন, এই বিষয়টিতে সরকারেরও দায় নিতে হবে এবং সংশ্লিষ্ট সকলেরই দায় নিতে হবে কারণ এই রেমিটেন্সের টাকা সরকারের খাতেই যায়। সরকারই এই রেমিটেন্সের সবচেয়ে সুবিধাভোগী।

ব্যারিস্টার সুমনের আলোচনার ভিডিওটি দেখতে ক্লিক করুন

মন্তব্য করুন