দান করা ৫ একর জমি আমাদের দরকার নেই: ওয়াইসি

প্রকাশিত: ৫:৪৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৯, ২০১৯

ইসমাঈল আযহার: সর্বভারতীয় মজলিস-ই-ইত্তিহাদুল মুসলিমিনের প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়াইসি বলেছেন, বাবরি মসজিদের মামলায় সুপ্রিম কোর্টের রায়ে তিনি সন্তুষ্ট না। সুপ্রিম প্রকৃতপক্ষে সর্বোচ্চ কিন্তু ভুলের ঊর্দ্ধে না।

তিনি বলেন, রায়ে আমি সুন্তুষ্ট না। তবে সংবিধানে আমার পূর্ণ আস্থা রয়েছে। আমাদের বৈধ অধিকার নিয়ে আমরা লড়াই করে যাচ্ছি। দান করা পাঁচ একর জমি আমাদের দরকার নেই। অল ইন্ডিয়া মুসলিম পারসোনাল ল’ বোর্ডের সঙ্গে আমি একমত।

অযোধ্যার শহরে একটি মসজিদ নির্মাণে পাঁচ একর জমি বরাদ্দে আদালতের নির্দেশ নিয়ে তিনি বলেন, আমরা নিজেদের অধিকারের জন্য লড়ছি। ভারতের এই এমপি বলেন, আমার মত হচ্ছে, ভূমি দানের এই প্রস্তাব আমাদের প্রত্যাখ্যান করা উচিত। আমাদের পিঠ চাপড়াবেন না।

ভারতের সুপ্রিম কোর্ট রায় দিয়েছে, অযোধ্যার বিতর্কিত জমিতেই রাম মন্দির নির্মাণ করা হবে। অন্যদিকে অযোধ্যাতেই মসজিদ নির্মাণের জন্য ৫ একর বিকল্প জমি দেওয়া হবে মুসলিমদের।

সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের আইনজীবী জাফারিয়াব জিলানি এই রায়ের পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়েছেন। সুপ্রিম কোর্টে এই রায়দানের পর সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের আইনজীবী জানান, এই রায়কে সম্মান জানাচ্ছি। কিন্তু সন্তুষ্ট নই।

অন্যদিকে হিন্দু মহাসভার আইনজীবী বরুণ কুমার জানান, এটি ঐতিহাসিক রায়। এই রায়ের মাধ্যমে বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্যের বার্তা দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। সাংবাদিক বৈঠক করে তিনি জানান, বিকল্প জমির বিষয় নয়। কিন্তু প্রত্যাশিত রায় আসেনি।

উল্লেখ্য, এ দিন চূড়ান্ত রায় দেওয়ার সময় প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ জানান, শর্তসাপেক্ষ এই জমি হিন্দুদের হাতে দিয়ে দেওয়া হোক। অযোধ্যাই রামের জন্মভূমি, হিন্দুদের এই বিশ্বাসকে অস্বীকার করা যায় না বলে জানায় সুপ্রিম কোর্ট। পাশাপাশি, আদালতের পর্যবেক্ষণ, ১৯৯২ সালে মসজিদ ভাঙা ছিল আইনবিরুদ্ধ কাজ। কিন্তু জমির দখল নিয়ে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের যে দাবি, তার যথাযথ প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

আই.এ/

মন্তব্য করুন