দার্শনিক জালালুদ্দিন রুমীর উপদেশ ও কিছু কথা

প্রকাশিত: ৪:৫৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৫, ২০১৯

দার্শনিক জালালুদ্দিন রুমী বলেছেন, ‘একাকীত্বে ভুগাে না, পুরাে এই মহাবিশ্বটাই তােমার মাঝে আছে। খুব ছােট হওয়া বন্ধ করে দাও, তুমি নিজেই তাে আপন গতিতে চলতে থাকা এক মহাবিশ্ব। নিজের জীবনকে আগুনে উৎসর্গিত করাে। যারা তােমার আগুনের শিখাগুলােকে উদ্দিপিত করতে পারবে, তাদের খোঁজ শুরু করে দাও।’

জীবনের কোন না কোন সময়ে এসে আমরা নিজেকে একাকীত্বের সাগরে নিমজ্জিত অবস্থায় আবিস্কার করি। কেউ পাশে নেই, সবাই ভুল বুঝছে- এই অনুভূতি আমাদের পিছু ঠেলে দেয়। একাকীত্বের যাতনায় হৃদয়টা দুমড়ে-মুচড়ে যায়। কান্নায় ভেঙ্গে পড়ি তখন। অনেকে জীবন ছেড়ে স্বেচ্ছায় অকালে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্তও নিয়ে বসেন।

অথচ, একটু যদি খেয়াল করে দেখেন, আপনি কিন্তু একা নন। পুরাে সৃষ্টি’র বিস্ময় যে মানুষ, আপনি তাে তা-ই। আপনার ক্ষমতা অপরিসীম। আপনার মাঝেই দুনিয়া জয় করার সাহস দেওয়া হয়েছে। দেওয়া হয়েছে সৃষ্টি করার অপার দক্ষতা। আপনিই সেই ব্যক্তি যিনি আলেকজান্ডার হয়ে দিগ্বী জয় করেছেন।

আপনি তাে সে-ই যে সকল বাধা অতিক্রম করে তেনজিং হয়ে হিমলায়ে উঠেছেন। আপনার মাঝেই তাে লুকিয়ে আছে জ্ঞানসাধক আল জাবের, শেক্সপিয়ার, ওমর খৈয়াম, আইজ্যাক নিউটন আর আইনস্টাইন হওয়ার চেতনা।

কিন্তু, হায়! আপনি নিজেকে ক্ষুদ্র ভেবে হেয় করেন। নিজেকে তাচ্ছিল্য করেন। নিজেকে হাসি-ঠাট্টার অতি পাংক্তেয় বস্তুতে পরিণত করেন। আপনি যদি জানতেন আপনি মহাসমুদ্রের মাঝে এক ফোঁটা পানি নন, বরং একটি ফোঁটা পানিতে পুরাে এক মহাবিশ্ব….আপনি কি নিজেকে এতােটা ছােট ভাবতে পারতেন?

তাই, সবার আগে নিজেকে জানুন। চোখ বন্ধ করে নিজেকে একটু সময় দিন। নিজেকে জানার এই ‘যুদ্ধে’ আপনাকে সবাই সাহায্য করতে পারবে না। নিজের এই অপার সম্ভাবনা নিজেকেই আগে উপলব্ধি করতে হবে। আর এ কাজে যিনি বা যারা আপনাকে সাহায্য করতে পারবেন, তাঁদেরকে খুঁজে বের করুন।

সংগৃহীত লেখা

আই.এ/

মন্তব্য করুন