নবীকে নিয়ে কটুক্তি সহ্য করা হবে না; খুলনায় ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ

প্রকাশিত: ৭:০৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৩, ২০১৯

শেখ নাসির উদ্দিন, খুলনা প্রতিনিধি: ভোলার বোরহানুদ্দিনে রসূল প্রেমিক তৌহিদী জনতার উপর হামলায় শতাধিক ধর্মপ্রাণ মুসলমান আহত ও কয়েকজন নিহতের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, ভোলার বোরহানুদ্দীনে সম্প্রতি প্রিয় নবী (সা.) কে নিয়ে যে অবমাননা করা হয়েছে, তা কোনভাবেই নবী প্রেমিক মুসলিম জনতা মেনে নিতে পারে না। মহানবী (সা.) আমাদের জানের চেয়েও প্রিয়। প্রিয় নবীর অপমান কোন মুসলমান সইতে পারে না। যে বা যারা এহেন জঘন্য অপরাধের সাথে জড়িত সরকারের উচিত হবে তাদেরকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনা। যেন ভবিষ্যতে এ ধরনের অপরাধ করার দুঃসাহস কেউ দেখাতে না পারে।

বুধবার (২৩ অক্টোবর) বিকাল ৩ টায় নগরীর নিউমার্কেট বায়তুন নুর মসজিদ কমপেক্সের সামনে ভোলার বোরহানউদ্দিনে তাওহীদী জনতার উপরে চালানো নির্মম হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদ এবং সকল শহীদ ও আহতদের ক্ষতিপূরণের দাবিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগর ও জেলা আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশ নগর সভাপতি আলহাজ্ব মুফতী আমানুল্লাহ’র সভাপতিত্বে এবং নগর সেক্রেটারী শেখ মোঃ নাসির উদ্দিন ও জেলা সেক্রেটারী মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুনের যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে প্রধান বক্তা জেলা সভাপতি অধ্যাপক মাওঃ আব্দুল্লাহ ইমরান বলেন, শতকরা ৯২ভাগ মুসলমানের দেশে বিশ্ব নবী (স.) এর অবমাননা কোনোভাবেই বরদাশত করা হবে না। ৫ জন জীবন দিয়েছে প্রয়োজনে নবীজীর জন্য আমরা সকলেই জীবন দিতে প্রস্তুত তবুও নবীজীর অপমান সহ্য করা হবে না, তাই আল্লাহ ও রসূল (স.) এর বিরুদ্ধে কটুক্তিকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান জাতীয় সংসদে পাস করার জন্য সরকারের কাছে আহ্বান জানান তিনি।

মিছিল পূর্ব সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন নগর সহ সভাপতি মাওঃ মুজাফ্ফার হোসাইন, শেখ হাসান ওবায়দুল করিম, জেলা সহ-সভাপতি মাওঃ রেজাউল করিম,শেখ জামিল আহমদ, ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদের নগর সভাপতি মুফতী গোলামুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মুফতী আব্দুল্লাহ ইয়াহইয়া, মাওঃ আলী আহমদ, শিক্ষক ফোরামের নগর সভাপতি মুফতী রবিউল ইসলাম রাফে, সেক্রেটারি মোঃ কামরুল ইসলাম, নগর জয়েন্ট সেক্রেটারী আলহাজ্ব মাওঃ দ্বীন ইসলাম, জেলা জয়েন্ট সেক্রেটারি মাওঃ মজিবুর রহমান, নগর সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম সজীব মোল্লা, নগর সহ সাংগঠনিক মোল্লা রবিউল ইসলাম তুষার, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক মাওঃ আসাদুল্লাহ হামিদি, সহ সাংগঠনিক মাওঃ আশরাফুল ইসলাম, নগর প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোঃ তরিকুল ইসলাম কাবির, সহ প্রচার আব্দুর রশীদ, জেলা প্রচার সম্পাদক মাওঃ হারুন অর রশিদ, সহ প্রচার সম্পাদক মোঃ ওলিয়ার রহমান, মোঃ শরিফুল ইসলাম, মুফতী আমিরুল ইসলাম, মাওঃ আব্দুস সত্তার, মোঃ মাসুম বিল্লাহ, মুক্তিযুদ্ধা জিএম কিবরিয়া, আলহাজ্ব মোমিনুল ইসলাম, মোঃ হুমায়ন কবির, ক্বারী মোঃ বাবর আলী, মুফতী ইসহাক ফরীদি, মাওলানা হাফিজুর রহমান, মাওঃ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ ফয়সাল, আলহাজ্ব আমজাদ হোসেন, আলহাজ্ব আব্দুস ছালাম, ডাঃ মাওঃ নাসির উদ্দিন, ইঞ্জিনিয়ার এজাজ মানসুর, মাওঃ হাফিজুর রহমান, হাফেজ মোস্তাফিজুর রহমান, মুফতি বোরহান উদ্দিন, মাওঃ আবু সাঈদ, মোঃ ইব্রাহিম হাওলাদার, আলহাজ্ব শহিদুল ইসলাম বিশ্বাস, মোঃ জাহিদুল ইসলাম, জিএম নওশের আলী, আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম, মাওঃ আবুল কালাম আজাদ, ডাঃ শহিদুল্লাহ, মোঃ জাহিদুৱ রহমান, মুফতি বেলাল হোসেন, আলহাজ মাওলানা ইমরান হুসাইন, মুফতী মাহবুবুর রহমান, মাওঃ সিরাজুল ইসলাম, শ্রমিক নেতা আলহাজ্ব জাহিদুল ইসলাম, মাওঃ গাজী নুর আহমদ, এস এম আবুল কালাম আজাদ, গাজী মুরাদ হোসেন, মুফতী হেলাল উদ্দিন, যুব নেতা মাওঃ তাওহীদুল ইসলাম মামুন, মোঃ ইমরান হোসেন মিয়া, মোঃ হুমায়ুন কবীর, এইচ এম জুনায়েদ মাহমুদ, ছাত্র নেতা মুহাঃ সাইফুল ইসলাম, এসকে নাজমুল হোসেন, মুহাঃ আব্দুল্লাহ আল নোমান, এইচ এম খালিদ সাইফুল্লাহ, কাজী আল আমিন, মুহাঃ নাজমুল হুদা, আব্দুস ছালাম জায়েফ, মুহাঃ নাজমুস সাকিব প্রমুখ। সমাবেশ শেষে বিশাল মিছিল শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করেন।

আই.এ/

মন্তব্য করুন