‘শুক্রবার জেলায় জেলায় বিক্ষোভ ও দোয়া; সর্বোচ্চ শাস্তির আইন পাশের দাবি’

প্রকাশিত: ৫:৫০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০১৯

আগামী ২৫ অক্টোবর শুক্রবার সারাদেশে ভোলায় নিহত শহীদদের স্মরণে দোয়া এবং জেলায় জেলায় বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। গতকাল সোমবার রাজধানীর বাইতুল মোকাররমে বিক্ষোভ সমাবেশ থেকেই এেই ঘোষণা দিয়েছেন দলের নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম।

এদিকে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই বলেছেন, ভোলার বোরহানুদ্দিনে আল্লাহ ও রাসূল সা.কে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে তৌহিদী জনতার ব্যানারে আয়োজিত প্রতিবাদ মিছিলে পুলিশের নির্বিচারে গুলিতে শত শত মুসল্লি আহত ও ৭ জনকে নিহত করে নাস্তিক ও মুরতাদদের পক্ষ নিয়েছে। তিনি হুশয়ারি উচ্চারণ করে  বলেন, আল্লাহ ও নবীপ্রেমিক জনতার রক্ত ঝরিয়ে ক্ষমতার মসনদে টিকে থাকতে পারবে না।

অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করে পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, আল্লাহ ও রাসূল সা.এর বিরুদ্ধে কটুক্তিকারী বিপ্লব চন্দ্র শুভ এর সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে পুলিশ পাখির মত গুলি করে শত শত নিরীহ ও নিরাপরাধ আলেম-ওলামা ও মুসল্লিকে আহত করে ধর্মীয় জনতার সেন্টিমেন্টে প্রতিবাদের আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে। ।

গতকাল গভীররাতে পীর সাহেব চরমোানই বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল হাসপাতালে ভোলার ঘটনায় চিকিৎসাধীন আহতদের দেখতে যান ইসলামী আন্দোলনের আমীর। এ সময় হাসপাতালে এক হৃদয় বিদারক ঘটনার অবতারণা হয়।

পীর সাহেব চরমোনাই ভোলার বোরহানুদ্দিনে তৌহিদী জনতার শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশের নির্বিচারে গুলি বর্ষণে বহুসংখ্যাক লোক হতাহতের ঘটনার প্রতিবাদে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ২৫ অক্টোবর শুক্রবার সারাদেশে শহীদদের স্মরণে মসজিদে মসজিদে দোয়া এবং জেলায় জেলায় বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচি সফলের আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশে একটা পক্ষ বার বার আল্লাহ রাসূল সা.কে নিয়ে উস্কানী দিয়ে দেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা-হাঙ্গামা লাগাচ্ছে এরা কারা, এদেরকে কারা ইন্ধন দিচ্ছে, এদের খুঁটির জোর কোথায় এগুলো দ্রুত খুঁজে বের করতে হবে। আল্লাহ ও রাসূল সা.কে নিয়ে কটুক্তি করা হবে আর মুসলমানরা নিরবে তা সহ্য করবে তা হতে পারে না। মুসলমানদের কাছে আল্লাহ ও রাসূল সা. মর্যাদা তাদের জীবনের চেয়েও অনেক বেশি।

তিনি বলেন, আল্লাহ ও নবীপ্রেমিক জনতার রক্ত ঝড়িয়ে সরকার অত্যন্ত খারাপ দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, প্রতিবাদ মিছিলে পুলিশ পাখির মত গুলি করে আলেম-ওলামা ও নবীপ্রেমিক জনতাকে শহীদ করার মধ্য দিয়ে সরকারের পতন ঘন্টা বেজে উঠেছে। অবিলম্বে আহতদের সুচিকিৎসা এবং শহীদ পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপুরণ দিতে হবে এবং দোষীদের গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তি দিতে ব্যর্থ হলে নবীপ্রেমিক জনতা রাজপথে নেমে আসতে বাধ্য হবে।

/এসএস

মন্তব্য করুন