হাটহাজারীতে মিছিলের আগে মন্দির পাহাড়ায় মাদরাসার ছাত্র-শিক্ষক

প্রকাশিত: ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২১, ২০১৯
বিক্ষোভ ও মন্দির পাহাড়ায় হাটহাজারী মাদরাসার ছাত্ররা

ভোলার বোরহানউদ্দিনে ফেসবুকে নবীজিকে (সা.) নিয়ে কটূক্তি ও  পুলিশ-জনতা সংঘর্ষে ৪ জন নিহত হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ। মিছিল শেষে আল্লামা আহমদ শফীর নেতৃত্বে হাটহাজারীতে জরুরি বৈঠকও হয়। বৈঠক থেকে কটূক্তিকারী এবং হামলাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানানো হয়।

সবশেষের শুরুতে চোখে পড়ার মতো আলোচনার বিষয় হলোা ‘হাটহাজারী কেন্দ্রীয় শ্রী শ্রী সীতাকালী মায়ের মন্দির’ পাহাড়ায় মাদরাসা ছাত্রদের মানবঢাল। সামাজিক মাধ্যমে এমন একটি ছবি ভাইরাল হয়েছে। ছবিতে দেখা যায় হাটহাজারী কেন্দ্রীয় মন্দিরের সামনে হাতে হাত ধরে মানবঢাল তৈরি করে দাঁড়িয়ে আছে মাদরাসার শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, বাদ আসর মাদরাসা থেকে ভোলার ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলের সময় মন্দিরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য আগে থেকেই সেখানে পৌঁছে মাদরাসা ছাত্রদের একটি দল। তারা সেখানে মানবঢাল তৈরি করে মন্দির পাহাড়া দেয়। যাতে করে কেউ মন্দিরে হামলা করে সাম্প্রদায়িক সংঘাতের সৃষ্টি না করতে পারে। মাদরাসার উস্তাদ এবং হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় নেতাদের নির্দেশেই ছাত্ররা মন্দির নিরাপত্তায় নিশ্চিত করে বলে জানা গেছে।

রোববার বাদ আসর হাটহাজারী ডাক বাংলো চত্বর থেকে প্রতিবাদ মিছিল শুরু করে মাদরাসার ছাত্র ও সাধারণ জনতা। একদিকে মন্দির পাহাড়া অন্যদিকে বিক্ষোভ মিছিল। দুই কাজেই সরব উপস্থিতিতে সচেতন ভুমিকা রাখে মাদরাসা ছাত্ররা। বিক্ষোভের সময় দেখা যায় মিছিল শেষে সড়কেই নামাজ পড়ছে বিক্ষোভকারীরা।

এ ব্যাপারে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় নেতা, মুফতী সাখাওয়াত হোসাইন রাজী বলেন, ‘হাটহাজারীতে মিছিল শুরুর আগেই মন্দিরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছে ছাত্ররা। এমন দৃশ্য আগেও বহুবার দেখা গেছে বাংলাদেশে। তৌহিদী জনতার আন্দোলন কোনো সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে নয়; বরং যারা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে চায় তাদের বিরুদ্ধে। যারা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে তাদের বিরুদ্ধে’।

/এসএস

মন্তব্য করুন