মেঘনায় ৭১ কেজি মা ইলিশ ও ৫৩ হাজার মিটার কারেন্টজাল জব্দ

প্রকাশিত: ৬:৩৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৪, ২০১৯

মা ইলিশের নিরাপদ প্রজননের লক্ষ্যে চাঁদপুরে মেঘনার অভয়াশ্রম এলাকা থেকে ৭১ কেজি মা ইলিশ ও ৫৩ হাজার মিটার কারেন্টজাল জব্দ করেছে নৌ-পুলিশ। সোমবার (১৪ অক্টোবর) ভোরে সদর উপজেলার রাজরাজেস্বর ইউনিয়নের মেঘনা নদীর পাড়ে এই অভিযান চালানো হয়। অভিযানকালে নৌ পুলিশের সাথে জেলেদের সংঘর্ষে ৬ জন আহত হয়েছে।

এরমধ্যে ২ জেলে, ২ পুলিশ সদস্য ও স্পীডবোট চালক রয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৫ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১৮ জেলেকে আটক করে। পৃথক আরও দুই অভিযানে আটক হয়েছে ১০ জেলে। চাঁদপুর নৌ-থানা পুলিশ জানায়, দায়িত্বরত নৌপুলিশের এসপি জমশের আলীর নেতৃত্বে নৌ-পুলিশের একটি দল ভোর ৬টার দিকে অভিযান চালায়।

মা ইলিশ নিধনকালে জেলেদের আটক করতে গেলে তারা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে এবং দলবদ্ধ হয়ে বাঁশ নিয়ে আক্রমণ চালায়। অভিযানের সময় পুলিশ ২১ কেজি মা ইলিশ ও ৫০ হাজার মিটার কারেন্টজাল জব্দ করে। চাঁদপুর নৌ-থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু তাহের খান গণমাধ্যমকে জানান,আটক জেলেদের বিরুদ্ধে চাঁদপুর মডেল থানায় নিয়মিত মামলা হয়েছে। আজই তাদেরকে আদালতে প্রেরণ করা হবে।

এদিকে সোমবার সকালে কোস্টগার্ড চাঁদপুর স্টেশনের পেটি অফিসার মাইনুল হোসেনের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে মেঘনা নদী থেকে ৮ জেলেকে আটক করা হয়। এ সময় জেলেদের কাছ থেকে ৫০ কেজি মা ইলিশ ও ৩ হাজার মিটার কারেন্টজাল জব্দ করেছে কোস্টগার্ড। চাঁদপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওলিদুজ্জামান ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ৮ জেলের প্রত্যেককে ১ বছর করে কারাদন্ড প্রদান করেন।

অপরদিকে হাইমচর উপজেলা টাস্কফোর্স রোববার দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে মা ইলিশ শিকার করায় দুই জেলেকে আটক করে। হাইমচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফেরদৌসি বেগম ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে প্রত্যেককে ১ বছর করে কারাদন্ড প্রদান করেছেন।

চাঁদপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো.আসাদুল বাকি জানান,চাঁদপুরের ৯০ কিলোমিটার নৌ-সীমানায় জেলা ও উপজেলা টাস্কফোর্সের সদস্যরা দিন ও রাতে নিয়মিত অভিযান অব্যাহত রেখেছেন। আটক জেলেদের পুলিশ কারাগারে প্রেরণ করেছে। বাসস।

ইসমাঈল আযহার/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন