কিশোরগঞ্জে বাতিঘরের সৃজনশীল সাহিত্য আড্ডা

প্রকাশিত: ৭:২৫ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৯

নকীবুল হক, কিশোরগঞ্জ: ‘সাহিত্য সমালোচনা’ সাহিত্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সেই সাহিত্য সমালোচনাকে সামনে রেখে সবাই যখন ‘লেখালেখির কর্মশালা’, ‘সাহিত্য আড্ডা’র নামে চা-মুড়ি নিয়ে ব্যস্ত, তখন গতানুগতিক সেইসব সাহিত্য আসরের বাইরে এসে এক ব্যতিক্রমী সৃজনশীল সাহিত্য আড্ডার আয়োজন করেছিলো ‘বাতিঘর’।

কিশোরগঞ্জের অন্যতম সাহিত্য সংগঠন ‘বাতিঘর সাহিত্য সংস্কৃতি পরিষদ’র উদ্যোগে গত বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) এই ব্যতিক্রমী সৃজনশীল সাহিত্য আড্ডা অনুষ্ঠিত হয়। ‘বিশ্বাসদীপ্ত তরুণ সমাবেশ’ শ্লোগানকে সামনে রেখে বাদ মাগরিব ঐতিহাসিক শহিদি মসজিদের রচনালয়ে জমায়েত হয় একঝাঁক স্বপ্নবাজ তরুণ। যারা সমকালের প্রচলিত সাহিত্য আসরের চা-মুড়ি উপেক্ষা করে বুঁদ হয়ে থাকে ‘কীভাবে নিজেদেরকে যোগ্য লেখক হিসাবে গড়ে তোলা যায়’ সেই আলোচনায়।

উক্ত সাহিত্য আড্ডায় শিল্প-সাহিত্যের উর্বর ভূমি কিশোরগঞ্জের সাহিত্যের নানা দিক নিয়ে আলোচনা করেন শক্তিমান তরুণ ছড়াকার আব্দুল্লাহ আশরাফ। সাথে দীপ্ত কণ্ঠে বলে যান নিজের ছড়াকার হয়ে ওঠার গল্প। সাহিত্যের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলেন সংগঠনটির সম্পাদক, লেখক ও অনুবাদক মাওলানা আমিন আশরাফ। কথা বলেন কীভাবে তরুণরা নিজেদেরকে যোগ্য লেখক হিসাবে গড়ে তুলবে, তার জন্য প্রাথমিক ভাবে তরুণদের কী কী করতে হবে ইত্যাদি বিষয়ে গভীর বিশ্লেষণ করে বুঝিয়ে দেন উপস্থিত তরুণদের।

আর সৃজনশীল সাহিত্য সংগঠন ‘বাতিঘর’ তরুণদের যোগ্য লেখক হিসাবে গড়ে তুলতে গতানুগতিক ধারার বাইরে বিভিন্ন ধরনের সৃজনশীল কার্যক্রম পরিচালনা করার অঙ্গীকার করেছে। যেমন- শুধু ঘটা করে একদিন বা আধা দিনের কর্মশালা নয়; তরুণদেরকে যোগ্য লেখক হিসেবে গড়ে তুলতে দীর্ঘ মেয়াদি কর্মশালা, নিয়মিত অধ্যয়ন, পাঠ সমালোচনাসহ সৃজনশীল বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করবে সংগঠনটি।

উক্ত সৃজনশীল সাহিত্য আড্ডায় স্বপ্নবাজ তরুণদের লেখকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মিজানুর রহমান, মাহমুদুল হাসান, এনামুল হক, সুলতান আফজাল আইয়ূবী, কামাল উদ্দিন, নকীবুল হক, নুরুচ্ছালাম গালীব প্রমুখ।

আলোচনা শেষে সেলফি ও ফটোসেশনের পর বিদায় অভিবাদনে ল্যাম্পপোস্টের নিয়ান আলো ধরে হাঁটতে থাকে স্বপ্নবাজ তরুণরা তাদের নিজ নিজ গন্তব্যের দিকে।

/এসএস

মন্তব্য করুন