লেখার মূল্য নেই কেন!

প্রকাশিত: ৮:৪২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১৯

জাফর বিপি

একজন লেখকের কাছে তার লেখা কোটি টাকার সম্পদ হলেও প্রকাশকের কাছে তা নিছক একটি পণ্য। যা বেঁচে সে দু’পয়সা কামাবে। তাই যার বইয়ের কাটতি যত বেশি হবে, প্রকাশকের কাছে তার কদরও তত বেশি হবে।

অনেক বইয়ের ক্ষেত্রে তো প্রকাশকরা তাদের চালানই তুলতে পারে না। সেক্ষেত্রে সেই বইয়ের লেখকের দিকে সে ফিরে তাকাবে না এটা অবাস্তব কিছু না। তাই নিজের স্থান নিজেরই তৈরি করতে হয়। নিজের ডিমান্ড নিজেরই ক্রিয়েট করতে হয়।

পাঠক যেন আমার লেখার জন্য প্রকাশককে তাড়া করে। আগ্রহ দেখায়। তাহলে প্রকাশকও আমাকে কেয়ার করবে। এজন্য প্রতিটি লেখকের জন্য প্রথমেই একটি নিজস্ব সার্কেল তৈরি করা উচিত। নিজের লেখার চাহিদা তৈরি করা উচিত।

সেক্ষেত্রে আমি বলব, সর্বপ্রথম নিজের লেখার মান ও শানের দিকে ফোকাস করতে হবে। একবার যার হাতে যাবে, সে যেন বলতে পারে, চমৎকার একটা লেখা পড়েছি। আচ্ছা প্রকাশক সাহেব! এই লেখকের আর কী কী বই আছে? আমাকে তার লিস্ট দেবেন? আমাকে সেসব সংগ্রহ করে দেবেন?

আমার লেখা যতদিন সেই স্তরে না পৌঁছে ততদিন লিখে যাওয়া উচিত। তবে বইয়ের জন্য না। বই লেখা অনেক পরের কাজ। আজকাল তো আবার বই লেখাও একটা স্টাইল হয়ে গেছে। দু’কলম লিখতে জানলে লিখি চার কলম। অথচ উচিত ছিল, চার কলম লিখতে জানলে লিখব এক কলম৷ তাহলে মূল্য পাব। যেটুকু লিখব সেটুকুই সোনা হবে। ফর্মায় ফর্মা কয়লা ভরে রেখে লেখক নাম ফুটাতে পারব, কিন্তু আদতে কোনো ফায়দা নেই৷ অর্থ ও সময় সবটাই অপচয়।

এমন বই নামক কাগজের দলায় আজকাল বাজার ভরে গেছে। চটকদার শিরোনাম আর বাহারি প্রচ্ছদের ঝলকে কাবু হয়ে বইটি কিনে একটুখানি পড়তেই যখন বিরক্তি চলে আসে তখন আসলে বই পড়ার প্রতি একটা অদৃশ্য অনিহা চলে আসে। অনেক ভালো বইয়ের কথা শুনলেও তখন পূর্ব অভিজ্ঞতা নজরে ভাসে। এসব অখাদ্য সাহিত্যের আগাছা। সুস্থ জ্ঞান বিকাশের অন্যতম অন্তরায় এসকল বই।

এসব থেকে বেরিয়ে আসা উচিত। দিনের পর দিন আগডুম-বাগডুম না লিখে সময় নিয়ে, শ্রম দিয়ে, সাধনা করে কিছু করা উচিত। অল্প হোক। কিন্তু সেটুকুই যেন সোনা হয়। একেবারে খাঁটি সোনা।

 

প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব। পাবলিক ভয়েস-এর সম্পাদকীয় নীতি/মতের সঙ্গে লেখকের মতামতের অমিল থাকতেই পারে। তাই এখানে প্রকাশিত লেখার জন্য পাবলিক ভয়েস কর্তৃপক্ষ লেখকের কলামের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে আইনগত বা অন্য কোনও ধরনের কোনও দায় নেবে না।

মন্তব্য করুন