আসামের নাগরিক তালিকা থেকে বাদ পড়াদের যুক্ত করার আহ্বান মমতার

প্রকাশিত: ৫:৩৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯

ভারতের আসামে এনআরসি বা জাতীয় নাগরিকপঞ্জী থেকে যাদের নাম বাদ পড়েছে, তাদের নাম পুনরায় তালিকায় ঢোকানোর জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে লিখিত দাবি জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। ক্ষমতাসীন দল বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করেও এই বিষয়ে কথা বলেছেন তিনি।

২০১৯ সালের ৩১ আগস্ট প্রকাশিত আসামের চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা (এনআরসি) থেকে বাদ পড়েছেন রাজ্যের ১৯ লাখ ৬ হাজার ৬৫৭ জন মানুষ। ২০১৮ বিধানসভা নির্বাচন এবং ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির ইশতেহারে অন্যতম ইস্যু ছিল নাগরিক তালিকা চূড়ান্ত করা।

আসামের নাগরিক তালিকার মতো সারাদেশে এই কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে বলে জানিয়েছেন ক্ষমতাসীন দল বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। আর মমতা ব্যানার্জি বলেন, তার সরকার রাজ্যে কিছুতেই এনআরসি চালু করতে দেবে না। এই ঘোষণার পর বৃহস্পতিবার দিল্লিতে অমিত শাহ ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির প্রথম কোনও সরকারি বৈঠক হয়। বৈঠকের ব্যাপারে মমতা ব্যানার্জি জানান, পশ্চিমবঙ্গে এনআরসি চালু করা নিয়ে তাদের দুজনের মধ্যে কোনও কথা হয়নি।

তালিকা ভুল মনে করেন মন্তব্য করে মমতা বলেন, ‘ যাদের নাম তালিকায় নেই তাদের নাম সেখানে তুলে দেওয়ার ব্যবস্থা হোক – কারণ এই ভারতীয়রা একটা চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে!” তিনি বলেন, ‘আমাদের বক্তব্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মন দিয়ে শুনেছেন, বিষয়টা দেখবেনও বলেছেন।” বৈঠকের পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এখনও কোনও বিবৃতি দেওয়া হয়নি, ওই বৈঠকের আলোচনা নিয়ে সরকারের আনুষ্ঠানিক কোনও বক্তব্যও মেলেনি।

বিজেপি নেতৃত্ব থেকে বলা হচ্ছে , রাজ্য সরকার কী বলছে তাতে কিছু যায় আসে না – গোটা দেশের স্বার্থেই আসামের মতো পশ্চিমবঙ্গেও নাগরিক তালিকা তৈরি করা হবে। নর্থ ব্লকে সেই বৈঠক শেষে ব্যানার্জি বলেন, “আসামে যেভাবে এনআরসি থেকে ১৯ লাখ মানুষের নাম বাদ পড়েছে আমি একটা চিঠি দিয়ে ওনাকে বলেছি এটা মোটেও ঠিক হয়নি। ‘এদের মধ্যে অনেক বাঙালির নাম বাদ গেছে। বাংলাভাষীরা যেমন বাদ পড়েছেন, হিন্দিভাষী বা গোর্খারাও বাদ পড়েছেন। হিন্দুরাও আছেন, মুসলিমরাও আছেন। এমন কী অসমিয়া অনেক লোকের নাম পর্যন্ত তালিকায় নেই।’

আই.এ/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন