তিনমাস পর আন্দোলন প্রত্যাহার করল বেরোবি কর্মচারী সমন্বয় পরিষদ

প্রকাশিত: ১১:৩৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯

নাহিদুজ্জামান নাহিদ, বেরোবি: প্রায় ৩ মাস পর আন্দোলন প্রত্যাহার করলেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) কর্মচারীরা। বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে এ আন্দোলনের সমাপ্তি ঘোষণা করেন কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের নেতৃবৃন্দ।

জানা যায়, ৩ দফা দাবিতে চলতি বছরের ২৩ জুন থেকে আন্দোলন করে আসছিলো বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের সংগঠন কর্মচারী সমন্বয় পরিষদ। তাদের দাবিগুলো হলো- কর্মচারী বান্ধব পদোন্নতি নীতিমালা, ৫৮ জন কর্মচারীর ৪৪ মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধ ও মাস্টাররোল কর্মচারীদের চাকুরি স্থায়ী করণ করা। এছাড়া আন্দোলন চলাকালীন কয়েকজন কর্মচারীকে বরখাস্ত করলে তাদেরকে স্বপদে বহাল রাখার দাবিটিও যুক্ত করা হয়।

কর্মচারীদের একাধিক সূত্র জানায়, দাবিগুলোর সুষ্ঠু সমাধানের জন্য উপাচার্যের সঙ্গে একাধিকবার আলোচনায় বসেছেন তারা। কিন্তু সমস্যাগুলোর সমাধানের কোনো কার্যকরী পদক্ষেপ না থাকাই এই আন্দোলনের দীর্ঘসূত্রিতা। তবে আজ (১১ সেপ্টেম্বর) উপাচার্য মহোদয় দাবিগুলো পূরণের আশ্বাস দেওয়ায় এই আন্দোলন তুলে নেয়া হয়েছে। তবে দাবিগুলো সঠিকভাবে মেনে না নেয়া হলে আবারও আন্দোলনের যাবেন বলে জানান তারা।

এ বিষয়ে কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি নূর আলম বলেন, ‘উপাচার্য স্যার দাবিগুলোর সুষ্ঠু সমাধান করার আশ্বাস দেওয়ায় আন্দোলন তুলে নেয়া হয়েছে।’

কত দিনের মধ্যে সমস্যাগুলোর সমাধান হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘১ সপ্তাহের মধ্যে কর্মচারীদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করার কথা বলেছেন এবং নীতিমালার আংশিক পরিবর্তন ও বরখাস্তকৃত এই মাসের মধ্যে স্বপদে বহাল রাখার কথাও বলেছেন। তবে সমস্যাগুলোর সুষ্ঠু সমাধান না হলে আবারও আন্দোলনে যাবেন বলে জানান তিনি।’
সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ ও হিসাব দপ্তরের পরিচালক আরএম হাফিজুর রহমান সেলিম বলেন, ‘যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সমস্যাগুলোর সমাধান করা হবে।’

বকেয়া বেতন কত দিনের মধ্যে দেয়া হবে এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘সঠিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই যত দ্রুত সম্ভব কর্মচারীদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করা হবে।’

নীতিমালার সমস্যা সমাধানের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘কর্মচারীদের নীতিমালার যে বিষয়গুলো পরিবর্তন করা সম্ভব তা করা হবে। এছাড়াও বরখাস্তকৃত কর্মচারীদের স্বপদে বহাল বিষয়টি তদন্ত কমিটির দায়িত্বে যারা আছেন তারা দেখবেন বলেও জানান।

/এসএস

মন্তব্য করুন