স্মৃতিত হুসাইন, বিস্মৃত উমর!

প্রকাশিত: ৫:২০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১, ২০১৯

দশই মুহাররাম ইমাম হুসাইন রাযিআল্লাহু আনহুর শাহাদাত দিবস- এটা আমরা জানি, কিন্তু পহেলা মুহাররাম যে সাইয়্যিদুনা উমর ইবনুল খাত্তাব রাযিআল্লাহু আনহুর শাহাদাত দিবস- ব্যাপারটি আমরা অনেকেই জানি না। দু:খজনক।

কারবালা আমাদের মনে দাগ কাটে। শুহাদায়ে কারবালার ইতিহাস আমাদের হৃদয়ের রক্তক্ষরণ ঘটায়। নবী পরিবারের উপর এজিদ বাহিনির অমানবিক আচরণ এবং বর্বরতা আমাদের চোখ ভিজিয়ে দেয়। বিশ্ব মুসলিমকে কারবালার করুণতা কাঁদায়। এটাই ঈমানের দাবি, নবী পরিবারের প্রতি ভালবাসার চাহিদা।

মুহাররাম এলে কারবালার ইতিহাস আলোচিত হয় বেশি। খতিবগণের খুতবার প্রায় পুরোটা জুড়েই থাকে কারবালা। হতে পারে, হওয়াই উচিত। কিন্তু ইমাম হুসাইনকে স্মরণ করা হলো আর উমরের মতো একজন মানুষের কথা একবারও উচ্চারণ করা হলো না- এটা কেমন ইনসাফ? উমরের অবস্থান কি ইমাম হোসাইন থেকে নিচে?

দশ মুহাররাম ৬১ হিজরি ইমাম হুসাইনের শাহাদাত দিবস। কিন্তু তারও আগে পহেলা মুহাররাম ২৪ হিজরি সাইয়্যিদুনা উমর ইবনুল খাত্তাবের ইয়াওমুশ শাহাদাত আমরা কেমন করে ভুলে থাকি?

রক্তরাঙা মুহাররাম আমাদেরকে আমাদের রক্তের ঋণের কথা মনে করিয়ে দিক। ইমাম হুসাইনের আলোচনার সাথে সাথে হযরত উমরের কথাও আলোচিত হোক। অথবা উমরের সাথে সাথে ইমাম হুসাইনের।

(এই লেখার উদ্দেশ্য, পহেলা মুহাররাম বা দশই মুহাররাম দিবস পালনের প্রতি উৎসাহিত করা না। উদ্দেশ্য হলো হযরত উমরের শাহাদাতের কথাটি স্মরণ করিয়ে দেওয়া মাত্র।)

শুভ ইসলামী নববর্ষ-
১৪৪১ হিজরী।
————-

রশীদ জামীল, প্রবাসী, লেখক, গবেষক ও কলামিস্ট

মন্তব্য করুন