হিজাব ছাড়বেন না ইলহান ওমর; ‘এটা প্রতিরোধের অংশ’

প্রকাশিত: ১২:৩০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৬, ২০১৯

মার্কিন কংগ্রেসের মুসলিম সদস্য ইলহান ওমর বলেছেন, তিনি হিজাব বা পর্দা ছাড়বেন না। তিনি গতকাল রোববার এক টুইটে আরও বলেছেন, হিজাবকে তিনি এক ধরণের প্রতিরোধ হিসেবে নিয়েছেন, তবে তা সব সময় খুব সহজ বিষয় নয়। ইলহান ওমর আরও লিখেছেন, তিনি শুধু ধর্মীয় বাধ্যবাধকতার কারণে হিজাব পরেন এমনটি নয় বরং হিজাব পরে আনন্দও পান। ইলহান ওমর হচ্ছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথমবার নির্বাচিত দুই মুসলিম নারীর একজন যিনি হিজাব পরে কংগ্রেসে হাজির হয়ে নতুন ইতিহাস গড়েছেন। শুধু তাই নয়, কুরআনে হাত রেখে শপথ নিয়ে আরেক নজির সৃষ্টি করেছেন তিনি।

সোমালিয় বংশোদ্ভূত মার্কিন কংগ্রেস ওম্যান ইলহান ওমর প্রথম থেকেই প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একপেশে নীতির বিরোধিতা করে আসছেন। এর আগে তিনি ট্রাম্পকে ফ্যাসিস্ট হিসেবেও উল্লেখ করেছেন। সোমালিয়া থেকে কিশোর বয়সে যুক্তরাষ্ট্রে উদ্বাস্তু হিসেবে আশ্রয় গ্রহণ করেন ইলহান ওমর। ১৭ বছর বয়সে মার্কিন নাগরিকত্ব লাভ করেন তিনি। ২০১৮ সালে মিনেসোটা থেকে ডেমোক্রেটিক পার্টির সদস্য হিসেবে মার্কিন কংগ্রেসের সদস্য নির্বাচিত হন।

প্রসঙ্গত, মার্কিন কংগ্রেসের ৩ নারী সদস্য বলেছেন, তারা ইহুদি রাষ্ট্র ইসরাইল সফরে যাবেন না। গত সপ্তাহে অবৈধ রাষ্ট্রটি যুক্তরাষ্ট্রের দুই নারী কংগ্রেস সদস্যের প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে। এরপর বৃহস্পতিবার ওই তিন নারী এমন সিদ্ধান্তের কথা বলেন। ডেইলি সাবাহ এ খবর দেয়। প্রথমবারের মতো কংগ্রেস সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হওয়া আলেক্সান্ডারিয়া অকাসিও-কোর্টেজ, অভিনেত্রী সিনথিয়া নিক্সন ও অধিকারকর্মী গ্লোরিয়া স্টেইনমেন অন্যদেরও ইসরাইল সফরে না যেতে আহ্বান জানিয়েছেন।

ইসরাইলকে বর্জন, পরিত্যাগ ও নিষেধাজ্ঞা(বিডিএস) আন্দোলন এক টুইটে এমন তথ্য জানিয়েছে। রাশিদা তালিব ও ইলহান ওমরকে নিষিদ্ধ করার একদিন পর নিক্সন বলেন, কংগ্রেসের সব সদস্যকে স্বাগত না জানানো পর্যন্ত ইসরাইল সফরে না যেতে ওয়াশিংটনের সব প্রতিনিধির কাছ থেকে প্রতিশ্রুতি চাচ্ছি। আর এ নিষেধাজ্ঞাকে আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে আঘাত হিসেবে দেখছেন ওকাসিও-কোর্টেজ।

তিনি বলেন, ইসরাইলে কংগ্রেস সদস্যদের প্রবেশে বেনইয়ামিন নেতানিয়াহুর নির্বিচার নিষেধাজ্ঞায় আন্তর্জাতিক কূটনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হবে। দুই মার্কিন কংগ্রেস সদস্যের ওপর ইসরাইলি নিষেধাজ্ঞার পর সামাজিক মাধ্যমে নিন্দার ঝড় উঠেছে। রিপাবলিক্যান সিনেটর মার্কো রুবিও এই সিদ্ধান্তকে একটা বড় ভুল হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

আই.এ/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন