আমার বিরুদ্ধে রাজনৈতিকভাবে ষড়যন্ত্র হচ্ছে: মাহী বি চৌধুরী

প্রকাশিত: ৬:৩২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৫, ২০১৯

আমার বিরুদ্ধে রাজনৈতিকভাবে ষড়যন্ত্র করে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) অভিযোগ দেয়া হয়েছে। মানি লন্ডারিং এর কোনো সুযোগ নেই। আয় বহির্ভুত কোনো সম্পদ আমার নেই। আমার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ ভিত্তিহীন। নিজের বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ প্রসঙ্গে এ কথা বলেছেন, বিকল্পধারা বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব মাহী বি চৌধুরী।

মাহী বি চৌধুরীকে এদিন সাড়ে ৫ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করেন দুদক কর্মকর্তারা। সকাল সাড়ে ১০টায় শুরু হয়ে এ জিজ্ঞাসাবাদ শেষ হয় বিকাল ৪টা ১০ মিনিটে।

মাহি বলেন, ‘আমি ষড়যন্ত্রের শিকার। কিছু মানুষ আছেন যাদের রাজনীতিতে কিছুই দেওয়ার নেই, তারাই ষড়যন্ত্র করছেন।’ জাতীয় নির্বাচনের আগেই তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের শুরু বলে দাবি করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘বিদেশে অর্থ পাচারের প্রশ্নই আসে না। বিদেশে আমার কোনও অর্থ থেকে থাকলে তা অবশ্যই বৈধভাবে আয় করা। আমি মানি লন্ডারিং করিনি। অবৈধ আয়ে কোনও সম্পদও গড়িনি।’

মাহী বলেন, দুদক তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের তদন্ত করেছে। তারা তাকে অভিযুক্ত করেননি।

তার বিরুদ্ধে একতরফাভাবে মিডিয়া ট্রায়াল হচ্ছে দাবি করে বিকল্পধারার প্রেসিডিয়াম সদস্য আরও বলেন, ‘এই প্রক্রিয়ায় চরিত্রহনন চলছে। গত ২৫ দিন ধরে ধৈর্য ধরে সব শুনছি, দেখছি।’ দুদককে স্বাধীনভাবে কাজ করতে দিতে হবে। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার জন্য এটা জরুরি বলে মন্তব্য করেন তিনি।

মাহী বলেন, ‘দুদক আমাকে ডেকেছে। এতে আমি বিব্রত নই। তারা আমাকে বিব্রত করেননি। তারা আন্তরিক ছিলেন।’

আগামী ২৭ আগস্ট দুদকের তলব বিষয়ে সংবাদ সম্মলনে বিস্তারিত তুলে ধরা হবে জানিয়ে তিনি দীর্ঘ সময় ধরে জিজ্ঞাসাবাদের ব্যাখ্যা দেন। বলেন, ‘খুটিনাটি অনেক বিষয় জানতে চেয়েছেন তারা। আয়-ব্যয়ের হিসাব, ১০ বছরের ট্যাক্সের নথিপত্র নিয়ে কথা হয়েছে। প্রতিটি বিষয়ই গুরুত্বপূর্ণ। সব প্রশ্নেরই জবাব দিয়েছি।’ তিনি নিজের সবকিছুকে বৈধ দাবি করেন।

জিআরএস/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন