ইসলামী আলোচক জাকির নায়েকের নামে মালয়েশিয়ায় ১১৫ অভিযোগ

প্রকাশিত: ১২:১৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৬, ২০১৯

ভারতের বহুল আলোচিত ইসলামিক বক্তা ও ধর্মীয় আলোচক ড. জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে মালয়েশিয়া ১১৫টি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এসব অভিযোগ নিয়ে ইতিমধ্যে দেশটির গোয়েন্দা সংস্থা তদন্ত শুরু করেছে বলে জানিয়েছে মালয়েশিয়ার একাধিক গণমাধ্যম।

সম্প্রতি মালয়েশিয়ার ভিন্নধর্মের অনুসারী চার মন্ত্রী জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় পর থেকে তার বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ উত্থাপন শুরু হয়।

গত বুধবার (১৪ আগস্ট) মালয়েশিয়ার মন্ত্রীপরিষদের সভায় ভিন্ন ধর্মের অনুসারী ওই চার মন্ত্রী জাকির নায়েককে মালয়েশিয়া থেকে প্রত্যাপর্ণের পক্ষে মত দেন। জাকির নায়েক ধর্মীয় বিদ্ধেষ ছড়াচ্ছেন এমন অভিযোগে তাকে মালয়েশিয়া থেকে বহিস্কারের দাবি তোলেন তারা।

তবে দেশটির প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ বলেছেন, জাকির নায়েককে ভারতের কাছে হস্তান্তর করলে তার প্রাণ সংশয় রয়েছে। সে কারণে অন্য কোনো দেশ তাকে আশ্রয় দিতে চাইলে মালয়েশিয়া স্বাগত জানাবে।

মালয়েশিয়া ফেডারেল সিআইডির পরিচালক হুজির মোহাম্মদ সেলানগর পুলিশের হেড কোয়ার্টার থেকে বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, আমরা তদন্ত প্রক্রিয়া শুরু করেছি। ইতোমধ্যে জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে ১১৫টি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে ভারতের ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানো ও অর্থপাচারের অভিযোগে মামলা ও গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে তবে জাকির নায়েক এসব অভিযোগ অস্বিকার করেছেন। পরবর্তিতে ভারতের হিন্দুত্ববাদী সরকারের রোষানল থেকে বাঁচতে তিনি মালয়েশিয়ায় আশ্রয় নিয়েছেন।

কিন্তু এরই মধ্যে তিনি মালয়েশিয়া এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, ভারতের সংখ্যালঘু মুসলিমদের চেয়ে মালয়েশিয়ার সংখ্যালঘু হিন্দুরা ১০০ গুণ বেশি অধিকার ভোগ করছে। যে বক্তব্য নিয়ে মালয়েশিয়ার হিন্দু সম্প্রদায় এবং এক হিন্দু মন্ত্রী জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ শুরু করেন।

এছাড়াও মালয়েশিয়ার ৬০ শতাংশ মুসলিম বাদে বাকি ৪০ শতাংশ মানুষের অধিকাংশই চীনা ও ভারতীয় বংশোদ্ভূত। তার এমন মন্তব্যকে ঘিরে সমালোচনা শুরু হয়েছে। তার ওই বক্তব্যের পর মালয়েশিয়া থেকে তাকে বহিষ্কারের দাবি ওঠে।

মন্তব্য করুন