ভারতে আখের ক্ষেতে কাজ করতে জরায়ু ফেলে দিচ্ছেন নারীরা

প্রকাশিত: ৯:৩৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ৮, ২০১৯

আখের ক্ষেতে ভাড়াটে শ্রমিক হিসেবে কাজ করার সুবিধার্থে নিজেদের জরায়ু ফেলে দিচ্ছেন ভারতীয় নারীরা। প্রতি বছর ওসমানাবাদ, সাংলি ও সোলাপুরসহ আরও কিছু জেলা থেকে দরিদ্র পরিবারের হাজার হাজার মানুষ, যেখানে প্রচুর পরিমাণে আখের ক্ষেত রয়েছে সেইসব জেলায় আখ কাটার শ্রমিক হিসেবে কাজ করতে যায়। এমন চাঞ্চল্যকর তথ্যি উঠে এসেছে বিবিসির প্রতিবেদনে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নারীরা কাজে গেলে অনেক সময়ই স্থানীয় ঠিকাদারদের শোষণ ও নিপীড়নের শিকার হন। এমনকি তারা নারীদেরকে নিয়োগ দিতেও গড়িমসি করে। আর অজুহাত হিসেবে বলে, মাসিকের সময়ে নারীরা আখ কাটার পরিশ্রম সাধ্য কাজ করতে পারবে না।

জরায়ু ফেলে দেওয়া এই নারীদের মধ্যে অল্পবয়সী তরুণীরাও রয়েছেন। ভারতীয় সংস্কৃতিতে মাসিক বা রক্তস্রাব একটি ট্যাবু। আর এসময় নারীদের অপবিত্র ও ধর্মীয় কাজে অংশগ্রহণের অনুপযোগী বিবেচনা করা হয়। কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলোতে এই গৎবাঁধা ধারণাকে শহুরে শিক্ষিত নারীরা চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলেছেন।

এইভাবে এখন মহারাষ্ট্রের কোনও কোনও গ্রামে প্রায় সকল নারী জরায়ু ফেলে দেওয়ায় বেশ কয়েকটি গ্রাম ‘জরায়ুবিহীন নারীদের গ্রামে’ পরিণত হয়েছে। জরায়ু ফেলে দেবার পর থেকে কোনও কোনও নারী স্বাস্থ্য সমস্যায় নিপতিত হয়েছেন। একজন বলছিলেন যে, তার ঘাড়, কোমর ও হাঁটুতে ব্যথা অনুভব করেন। আরেক নারী জানালেন, সকালে ঘুম থেকে উঠার পর তাদের হাত পা ও মুখ ফুলে যায়।মহারাষ্ট্রের বিদ্যমান পরিস্থিতিকে অত্যন্ত ‘করুণ ও দু:খজনক’ বলে উল্লেখ করেছেন ‘ন্যাশনাল কমিশন ফর উইমেন।

আইএ/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন