বুধবার ঈদ: চরমোনাই-হাটহজারীর পর ধর্মপ্রতিমন্ত্রীর ঘোষণা

প্রকাশিত: ১১:০৪ অপরাহ্ণ, জুন ৪, ২০১৯

চরমোনাই জামিয়া কর্তৃপক্ষ চাঁদ দেখার বিষয়টি নিশ্চিত করলে জামিয়ার পক্ষ থেকে মুফতী সৈয়দ রেজাউল করীম ও মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম আগামীকাল ঈদ উযাপনের ঘোষণা দেন। এরইমধ্যে চলমান বৈঠকে হাটহাজারী থেকেও ঈদ উদযাপনের ঘোষণা আসে। এরপরই ধর্মপ্রতিমন্ত্রী চাঁদ দেখার ঘোষণা দেন।


সোমবার সন্ধায় জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক হয় বাইতুল মোকারমে ইসলামী ফাউন্ডেশনে। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় বাংলাদেশের আকাশে কোথায় শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যায়নি সুতরাং বৃহস্পতিবার ঈদুুল ফিতর উদযাপন করা হবে।

অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার এই ঘোষণা দেরি হওয়ায় সারাদেশে তারাবী নামাজ পড়া না পড়া নিয়ে ইমাম-মুসুল্লিরা, দ্বিধা-দ্বন্ধে ভোগে। কোথাও কোথাও এশার নামাজ পড়েই মুসুল্লিরা চলে গেছেন যে যার মতোই।

কেননা, সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রচ্যের প্রায় অনেক দেশেই আজ মঙ্গলবার ঈদ উদযাপন হয়েছে। সৌদি আরবে যেহেতু আজকে ঈদ হয়েছে অনুমিতভাবেই সবার ধারণা আগামীকাল বাংলাদেশে ঈদ হবে। এটাই দেখে আসছে মানুষ যুগ ‍যুগ ধরে।

কিন্তু ইসলামী ফাউন্ডেশনের ঘোষণার পর অপেক্ষা মুসুল্লিরা তারাবী নামাজ আদায় করে। দেশের বৃহত্তম দীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলুম হাটহাজারী মাদরাসাও চাঁদ দেখা কমিটির ঘোষণার পর তারাবীর নামাজ পড়ে।

কিন্তু এরইমধ্যে মাদারীপুর ও লালমনিরহাটে চাঁদ গেছে মর্মে খবর ভাইরাল হয় সামাজিক যোগায়োগ মাধ্যমে। মাদারীপুরে মুফতী ওমর ফারুক তার মুসল্লীদের নিয়ে চাঁদ দেখেছেন বলে ফেসবুকে অনেকেই পোস্ট করেন।

এই মর্মে মুফতী সাহেবের নাম্বার নিয়ে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ সংবাদের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তার মাদরাসার মেশকাত জামাতের ছাত্র ৬জন মুসল্লিসহ চাঁদ দেখেছে। ফলে তিনি তার এলাকাবাসীকে আগামীকাল ঈদ করার নির্দেশ প্রদান করেছেন।

তিনি আরেো জানান, চাঁদ দেখার খবর সঙ্গে সঙ্গেই হাটহাজারীর মুফতী নূর আহমদকে জানান। কিন্তু এরপর হাটহাজারীতে কেন তারাবী হলো বিষয়টি বোধগম্য নয়।

এ বিষয়ে জানতে হাটহাজারীরতে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, নূর আহমদ সাহেব অসুস্থ থাকায় খবর পৌঁছাতে বিলম্ব হয়, তাই তারা তারাবী পড়েছেন। নামাজ শেষ হওয়ার পর এই বিষয়টি জানাজানি হলে হাটহাজারীতে বৈঠকে বসেন হাটহাজারীর শীর্ষ আলেমরা।

চরমোনাই জামিয়া কর্তৃপক্ষ মাদারীপুর ও লালমনিরহাটে যোগাযোগ করে চাঁদ দেখার বিষয়টি নিশ্চি হয়। এরপর জামিয়ার পক্ষ থেকে মুফতী সৈয়দ রেজাউল করীম ও মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম আগামীকাল ঈদ উযাপনের ঘোষণা দেন।

এদিকে বাইতুল মোকাররমে ফের ব্রিফিং করার ঘোষণা দেন ধর্মপ্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ। এরইমধ্যে হাটহাজারীতেও মাদারীপুর ও লালমনিরহাটে চাঁদ দেখার সত্যতা যাচাই-বাছাই করে ঈদ উদযাপনের ঘোষণা দেয়।

পরে হাটহাজারীর সাথে সমন্বয় করে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির পক্ষ থেকে রাত সোয়া ১১টার দিকে ব্রিফিং চাঁদ দেখা গেছে মর্মে বুধবার ঈদ উদযাপন হবে বলে ঘোষণা দেন ধর্মপ্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।

এসময় তিনি জানান, লালম‌নিরহা‌টের পাট্রগামে ৭ জন সরাস‌রি চাঁদ দে‌খে‌ছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় জেলা প্রশাসক।

/এসএস

মন্তব্য করুন