১৫ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারীর অজান্তে তাদের কন্টাক্ট লিস্ট নিয়েছে সংস্থাটি

প্রকাশিত: ৭:১৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৮, ২০১৯

আনুমানিক ১৫ লাখ ব্যবহারকারীর ইমেইল ‘কন্টাক্ট লিস্ট’ নিয়েছে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। নজিরবিহীন এমন তথ্য স্বীকার করে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ঘটনাটিকে ‘অনিচ্ছাকৃত’ বলে দাবি করেছে। গত তিন বছর ধরে ফেসবুক একাজ করে আসছে বলে রয়টার্স খবর দিয়েছে।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৬ সালের মে মাসের পর নতুন ব্যবহারকারীদের ভেরিফিকেশনের জন্য ইমেইল পাসওয়ার্ড চেয়েছিল ফেসবুক। আর ওই সময়ই ব্যবহারকারীদের না জানিয়েই তাদের অজান্তে ইমেইল কন্টাক্ট লিস্ট আপলোড করা হয়। তবে চলতি বছরের মার্চে ওই অপশনটি বন্ধ করে দেয় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে রয়টার্সকে জানায়, এই সময়ে ১৫ লাখের মত ব্যবহারকারীর ইমেইল কন্টাক্ট লিস্ট আপলোড হয়ে থাকতে পারে। একইসঙ্গে বিবৃতিতে দাবি করা হয়, এসব তথ্য অন্য কারও হাতে যায়নি এবং সেসব কন্টাক্ট লিস্ট মুছে ফেলা হয়েছে।

যেসব ব্যবহারকারীর তথ্য নেওয়া হয়েছিল তাদেরকে বিষয়টি জানানো হবে বলেও রয়টার্সকে পাঠানো বিবৃতিতে উল্লেখ করেছে ফেসবুক।

ব্যবহারকারীদের তথ্যে গোপনীয়তা নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকটি বড় ধরনের কেলেঙ্কারির মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে ফেসবুককে। গ্রাহকের নিরাপত্তা ও ব্যক্তিগত তথ্যের অপব্যবহারের বিষয়ে কয়েকটা দেশে জরিমানাও গুনতে হয়েছে তাদের।

গত বছরের শেষ দিকে ফেসবুকে বড় ধরনের নিরাপত্তা ত্রুটি ধরা পড়ে, যার মাধ্যমে ৬০ কোটির মত অ্যাকাউন্টের নিয়ন্ত্রণ বেহাত হওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয়। এছাড়া গতবছর ২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারে ১০ কোটির বেশি ফেসবুক ব্যবহারকারী তথ্যের অপব্যবহারের ঘটনা ফাঁস হয়।

ওই খবর প্রকাশের জের ধরে যুক্তরাজ্যের পরামর্শক প্রতিষ্ঠান কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার কার্যালয়ও বন্ধ হয়ে যায়। ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গ বেশ চাপের মুখেও পড়েন। এমনকি এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটে শুনানির মুখোমুখি হতে হয় ফেসবুকের প্রধান কর্তাকে।

আইএ/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন