টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ সভাপতিকে পিটিয়ে ক্যাম্পাস ছাড়া করলো প্রতিপক্ষ

প্রকাশিত: ৮:৪৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৯

পাবলিক ভয়েস: টাঙ্গাইলের মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (মাভাবিপ্রবি) ছাত্রলীগের সভাপতি সজিব তালুকদারকে পিটিয়ে ক্যাম্পাস ছাড়া করেছে প্রতিপক্ষ গ্রুপ।

গতকাল সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাতে ছাত্রলীগের দুই কর্মীকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করার  খবর ছড়িয়ে পড়লে প্রতিপক্ষের নেতাকর্মীরা আজ মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে সজিব তালুকদারের ওপর হামলা চালায়।

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জানান, গত সোমবার রাত ১০টার দিকে আব্দুল মান্নান হলের দুই ছাত্রলীগ কর্মী রাসেল আল ফারাবি ও সানাউল ইসলামকে সজিব তালুকদার বঙ্গবন্ধু হলে তার কক্ষে ডেকে নেন। সজিব তালুকদারের গ্রুপকে সমর্থন না করায় ওই দুই কর্মীকে জোর পূর্বক সংগঠন থেকে পদত্যাগ করতে বলেন।

পদত্যাগ করতে রাজি না হওয়ায় রাত একটা পর্যন্ত তাদের ওই কক্ষে আটকে রেখে নির্যাতন করেন। একপর্যায়ে তাদের কাছ থেকে পদত্যাগপত্রে স্বাক্ষর নেন। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে অশ্লীল কথাবার্তা বলতে বাধ্য করেন এবং সে দৃশ্য মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারন করেন। পরে তাদের ছেড়ে দেন।

নির্যাতনের শিকার রাসেল আল ফারাবি জানান, সজিব তালুকদার ও তার সহযোগীরা তাদের দু’জনকে টানা তিন ঘণ্টা শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করেছেন।

সকালে এ খবর শোনার পর ছাত্রলীগের সজিব তালুকদার বিরোধীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে। আজ মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে তারা বঙ্গবন্ধু হলে সজিব তালুকদারের কক্ষে হামলা চালিয়ে তাকে লাঠি, হকি স্টিক দিয়ে পেটাতে থাকেন।

এতে সজিবের মাথা ফেটে যায় এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত পান। পরে তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সজিব তালুকদারের ওপর হামলার পর তার অনুসারিরা ক্যাম্পাস ছেড়ে চলে যান।

ছাত্র-ছাত্রীরা জানায়, সজিব তালুকদারের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, ইয়াবা ব্যবসা, টেন্ডারবাজিসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। তিন মাস আগে শিক্ষকদের সঙ্গে অসদাচরণের অভিযোগে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। তারপরও প্রভাব খাটিয়ে তিনি অবৈধভাবে বঙ্গবন্ধু হলে অবস্থান করতেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সিরাজুল ইসলাম জানান, দুপুরে এ ঘটনার পর ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বিকেলে উপাচার্য শিক্ষকদের নিয়ে জরুরি সভা করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার জন্য উপাচার্য হল প্রভোস্ট, প্রক্টরসহ সবাইকে সচেষ্ট থাকতে অনুরোধ জানিয়েছেন।

মন্তব্য করুন