পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের মাধ্যমে আমি আমার ফিটনেস ঠিক রাখি : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৭:০০ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮

বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে আওয়ামী লীগের গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন-সিআরআই আয়োজিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তরুণ প্রজন্মের সরাসরি মতবিনিময় অনুষ্ঠান ‘লেটস টক উইথ শেখ হাসিনা’ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কিভাবে নিজের ফিটনেস ঠিক রাখেন এক তরুণের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের জীবনে তো রুটিন ঠিক থাকে না তবে আমি নিয়মিত পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ি এবং পরিমিত মাপে খাবার খাই এতেই আমার শারিরিক ফিটনেস ঠিক থাকে। এ ছাড়াও গণভবনের অনেকটা বদ্ধ জীবনের মধ্যেই চেষ্টা করি প্রতিদিন সকালে একটু হাটাহাটি করতে। সবচেয়ে বড় বিষয় হলো আমি চেষ্টা করি নিজে সব সময় ভালো আছি এই আত্মবিশ্বাস নিজের মধ্যে রাখতে। নিজে ভালো এবং সুস্থ থাকার ব্যাপারে বলেন, পরিমিতভাবে খাওয়া এবং চিন্তা-ভাবনাকে স্বচ্ছ রাখার মাধ্যমেই নিজে ভালো থাকা যায়।

আর এক তরুনী প্রধামন্ত্রীকে প্রশ্ন করেন, “আপনি যদি প্রধানমন্ত্রী না হতেন বা রাজনীতি না করতেন তাহলে কী হতেন বা কী হওয়ার ইচ্ছে কাজ করতো আপনার মধ্যে”? উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ছাত্র জীবনে আমি ডাক্তার হওয়ার ইচ্ছা পোষণ করতাম কিন্তু এসএসসি পরীক্ষায় যখন অংকে নাম্বার কম পেলাম এবং আমার বেশিরভাগ বন্ধুরাই আর্টস বিভাগে পড়তে চলে গেলো তখন আমিও আর্টসে ভর্তি হলাম। সাইন্সে পড়ার ব্যাপারে আমার অনিচ্ছা থাকার কারণে শেষ পর্যন্ত আর ডাক্তার হওয়া হয়নি। পরবর্তিতে আমি শিক্ষক হওয়ার ইচ্ছা রাখতাম। প্রাইমারী স্কুলের ছোট ছোট বাচ্চাদের পড়ানোর ইচ্ছা ছিলো আমার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত রাজনীতিতে থিতু হয়ে আর হলো না এসব।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে অনেক তরুণ-তরুণীরা প্রধানমন্ত্রীকে বিভিন্ন ব্যক্তিগত প্রশ্ন করেছেন এবং প্রধানমন্ত্রী সবার সাথে হাসিখুশিভাবে প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত : লেটস টক উইথ শেখ হাসিনা অনুষ্ঠানে তরুণরা সরাসরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিভিন্ন প্রশ্ন করেন এবং প্রধানমন্ত্রী খোলাখুলিভাবে সেসব প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। অনুষ্ঠানে তরুণদের মুখোমুখি হয়ে ভবিষ্যৎ স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ে তুলতে তরুণদের বিভিন্ন উদ্যোগ, পরামর্শ ও চাওয়া-পাওয়ার কথা শুনেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ডা. নুজহাত চৌধুরীর উপস্থাপনায় প্রধানমন্ত্রী সারা দেশ থেকে আসা ১৫০ জন অংশগ্রহণকারী তরুণের সঙ্গে দেশের বিভিন্ন নীতি নির্ধারণী বিষয়ে আলোচনা করেছেন। নিজের কৈশোর, তারুণ্য, রাজনৈতিক জীবনসহ ব্যক্তি জীবনের নানা ঘটনার ওপরও আলোকপাত করেছেন তিনি।

মন্তব্য করুন