ইয়েমেন বিষয়ে আলোচনা হতে পারে ডিসেম্বরে

প্রকাশিত: ১১:২৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০১৮
ইয়েমেনে যুদ্ধবিরতির সম্ভাবনা। ছবি : রয়টার্স

আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে ইয়েমেনে চলমান সংঘর্ষের অবসান ঘটানোর শান্তি আলোচনা সুইডেনে অনুষ্ঠিত হবে। মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব জেমস ম্যাটিস বুধবার বলেছেন, বিশেষজ্ঞরা সাবধান করেছেন যে সৌদি আরবের যে কোন পদক্ষেপ নিতে হবে এবং তারা ইয়েমেনের ব্যাপারে নমনীয় হবে বলে তারা আশা করছে।

 

সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন জোট এবং ইরানের সমর্থিত হুথি বিদ্রোহীদের মধ্যে চার বছর ধরে চলা সংঘর্ষে হুতি বিদ্রোহীরা প্রায় ৫৭,০০০ মানুষকে হত্যা করেছে। জাতিসংঘের বর্ননা মতে প্রায় অর্ধলক্ষ মানুষ ইয়েমেনে নিহত হয়েছে। ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়ে পড়ে দেশটি ক্ষুধার্ত প্রান্তে পরিণত হয়েছে।

 

জাতিসংঘের প্রতিবেদন অনুযায়ী প্রায় ১৪ লাখ মানুষ ঝুঁকির মুখে পড়েছে।

 

সৌদি আরব ও তাদের জোটীরা ইরানী প্রভাব প্রতিহত করার জন্য শুরু করেছিলো। কিন্তু সে প্রভাব প্রতিহত করার চেয়ে সাধারন জনগন হতাহত বেশি হয়েছে। উপসাগরীয় জোট মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং ফ্রান্স থেকে সহায়তা পেয়েছে, এবং তারা ইয়েমেনে যুদ্ধ পরিচালনার জন্য সৌদি আরবের কাছে অস্ত্র বিক্রি করছে।

 

‘তবে বিশ্ব মনে করছে  ইয়েমেনে একটি বড় পরিবর্তন প্রয়োজন এখন’

 

“মনে করা হচ্ছে সুইডেনে ডিসেম্বরে খুব হুতি বিদ্রোহীসহ উভয় পক্ষকে দেখতে পাব এবং জাতিসংঘের স্বীকৃত রাষ্ট্রপতি হাদি সরকার সেখানে থাকবে”। ম্যাটিস পেন্টাগনে সাংবাদিকদের বলেন। “সৌদি ও আমিরাত সরকার আলোচনা প্রস্তাবে রাজি হয়েছে”

 

আলোচনায় অংশ নিতে সহায়তা করার জন্য প্রতিরক্ষা সচিব ইয়েমেন, মার্টিন গ্রিফিথস এবং সুইডেনের জাতিসংঘের বিশেষ দূতকে ধন্যবাদ জানান।

 

ইউনাইটেড কিংডম জাতিসংঘে একটি খসড়া প্রস্তাবেও দায়ের করেছে যা মানবিক সহায়তা এবং মানবিক সাহায্যের উপর জোর দেয়। খসড়ায় দেশটিতে সাহায্য করার জন্য যুদ্ধ বিরতির প্রস্তাব দেয়া হয়।

 

 

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর মিত্র সৌদি প্রিন্স সালমানকে বলেছেন, “ইয়েমেনের সহিংসতা বন্ধ করার জন্য আপনাকে সৌদি নীতির একটি বড় পরিবর্তন আনা প্রয়োজন।

 

এইচ/আর

মন্তব্য করুন